ফুফুর পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় প্রাণ গেলো ভাতিজার, ‘প্রেমিক’ আটক

প্রতীকী ছবি

::ফরহাদ খান, নড়াইল::
ফুফুর পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় নড়াইল সদর উপজেলার শিমুলিয়া গ্রামে ভাতিজা রেজাউল ইসলামকে (২২) পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

নিহত রেজাউল শিমুলিয়া গ্রামের রাবুল মোল্যার ছেলে এবং কৃষি কাজ করতেন। অভিযোগ রয়েছে, ফুফুর পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় কথিত প্রেমিক বাছের মোল্যা (৫০) রেজাউলকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত বাছেরকে আটক করেছে। বাছের যশোরের অভয়নগর উপজেলার কাংকুল গ্রামের সোনা মোল্যার ছেলে। কাংকুল গ্রামটি শিমুলিয়ার পাশেই অবস্থিত।

কলোড়া ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বর গোলাম নবী জানান, বুধবার (২৬ জুন) রাত ৯টার দিকে শিমুলিয়া গ্রামের সোহরাব মোল্যার মেয়ে রুকি বেগম (৪০) স্বামী-সন্তান রেখে বাছের মোল্যার সঙ্গে পরকীয়া করতে থাকে। একপর্যায়ে তারা অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত হয়ে পড়ে। ঘটনাটি রুকির ভাতিজা রেজাউল টের পেয়ে কথিত প্রেমিক বাছেরকে হাতেনাতে ধরে ফেলে।

এ সময় বাছের লাঠি দিয়ে রেজাউলের মাথায় আঘাত করে পালিয়ে যায়। গুরুতর আহত রেজাউলকে বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে নড়াইল সদর হাসপাতালে আনা হয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে বৃহস্পতিবার দুপুরে তার মৃত্যু হয়।

সদরের বিছালী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই জাফর আলী বলেন, এ ঘটনায় জড়িত বাছের মোল্যাকে আটক করা হয়েছে।