অপারেশনের ১২ ঘণ্টা পরও জ্ঞান ফেরেনি শাহীনের

স্পন্দন নিউজ ডেস্ক : সাতক্ষীরায় দুর্বৃত্তদের আঘাতে মাথা ফেটে যাওয়া কিশোর চালক শাহীনের অপারেশন সম্পন্ন হয়েছে শনিবার রাতে। তবে ১২ ঘণ্টা পার হলেও এখনো জ্ঞান ফেরেনি তার। বর্তমানে সে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জেনারেল আইসিইউতে ভর্তি রয়েছে।

ঢামেক সূত্রে জানা গেছে, শনিবার (২৯ জুন) রাত ৯টা ৫০ মিনিটে তাকে ঢামেকে আনার পর রাত সাড়ে ১২টায় অপারেশন থিয়েটারে নেওয়া হয়। অপারেশন শেষে রাত সোয়া ৩টায় তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়। তবে এখনো তার জ্ঞান ফেরেনি।

এদিকে সাতক্ষীরার আহত শাহীনের চিকিৎসার জন্য সাত সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। এ বিষয়ে ঢামেক হাসপাতাল পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম নাসির উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, শাহীনের মাথায় ধারালো অস্ত্রের গুরুতর আঘাত রয়েছে। তার অবস্থা গুরুতর। রাতে তার মাথায় অস্ত্রোপচার করার পরপরই আইসিইউতে রাখা হয়েছে। এখনো তার জ্ঞান ফিরেনি। তার অবস্থা এখনো শঙ্কামুক্ত নয়।

তিনি আরও বলেন, হাসপাতালের পক্ষ থেকেই তার চিকিৎসার যাবতীয় ব্যবস্থা করা হচ্ছে। শাহীনের চিকিৎসার জন্য ইতোমধ্যে নিউরোসার্জারি বিভাগীয় প্রধানকে প্রধান করে সাত সদস্যের একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। শাহীনের চিকিৎসা বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকেও সার্বক্ষণিক খোঁজ-খবর নেওয়া হচ্ছে।

জানা গেছে, যশোরের কেশবপুরের গোলাখালী মাদরাসার সপ্তম শ্রেণির ছাত্র শাহীন গত শুক্রবার সকালে ব্যাটারিচালিত ভ্যান নিয়ে রোজগারে বের হয়েছিল। দুপুরে দুর্বৃত্তরা ভ্যানটি ভাড়া নেয়। পরে ধানদিয়া গ্রামের হামজাম তলা মাঠে ঢুকে একটি পাটখেতের পাশে দুর্বৃত্তরা শাহীনের মাথা ফাটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে ভ্যানটি নিয়ে পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলে অজ্ঞান হয়ে পড়ে সে। জ্ঞান ফিরে কাঁদতে থাকলে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা থানায় খবর দেয়।

পাটকেলঘাটা থানার ওসি রেজাউল হোসেন বলেন, শাহীনকে উদ্ধার করে খুলনার আড়াইশ শয্যা হাসপাতালে আনা হয়। শনিবার তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়।