শাহীনের চিকিৎসায় সাত সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড

স্পন্দন নিউজ ডেস্ক : ভ্যান চালাতে গিয়ে যাত্রীবেশে দুর্বৃত্তদের আঘাতে গুরুতর আহত কিশোর শাহীনের চিকিৎসায় সাত সদস্য বিশিষ্ট মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়েছে।

নিউরোসার্জারি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. অসিত চন্দ্র সরকারকে প্রধান করে রোববার (৩০ জুন) এ বোর্ড গঠন করা হয়।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম নাসির উদ্দিন জানান, শাহীনের চিকিৎসার জন্য সাত সদস্য বিশিষ্ট মেডিক্যাল কমিটি গঠন করা হয়েছে। শিশুটির চিকিৎসার সব ব্যয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বহন করছে।

তিনি আরও জানান, শনিবার  রাতে শাহীনের অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। তাকে জেনারেল আইসিউতে রাখা হয়েছে। শিশুটির অবস্থা এখনো আশঙ্কাজনক।

গত শুক্রবার  দুপুরে যশোরের কেশবপুর উপজেলার মঙ্গলকোট গ্রামের হায়দার আলী মোড়লের ছেলে কিশোর শাহীনের ভ্যানে যাত্রীবেশে ওঠে দুর্বৃত্তরা। পরে সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা থানার ধানদিয়ায় রাস্তার দু’পাশের পাট ক্ষেতের নির্জন স্থানে শাহীনের মাথায় আঘাত করে গাড়িটি নিয়ে পালিয়ে যায় তারা। অনেকক্ষণ অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকে সে। চেতনা ফিরলে শাহীনের কান্নার শব্দে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে থানায় খবর দেয়।

পরে পুলিশ শাহীনকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে পরদিন শনিবার উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

স্থানীয় কয়েকজন  জানান, শাহীনের বাবা হায়দার আলীর অভাবের সংসার। বসতভিটা ছাড়া তাদের কোনো জমিজমা নেই। সম্প্রতি বেসরকারি সাহায্য সংস্থা (এনজিও) থেকে ঋণ নিয়ে ব্যাটারিচালিত ভ্যানটি কিনে ভাড়ায় চালিয়ে সংসারের হাল ধরে শাহীন। তার রোজগারের টাকায় সংসার খরচ ছাড়াও ঋণের কিস্তি, সে এবং তার বড় বোনের পড়ালেখা চলতো।

দুর্বত্তদের আঘাতে তার আহত হওয়ার খবরটি পত্রপত্রিকায় প্রকাশ হলে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। বিষয়টি নজরে এসেছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনারও। তিনি শাহীনের চিকিৎসার তদারকি করছেন বলে ড. অসিত চন্দ্র সরকার।