পরলোকে সংগীত শিল্পী ও সংগঠক নিবাস মণ্ডল : শোক

নিজস্ব প্রতিবেদক:
স্বরলিপি সংগীত একাডেমি যশোরের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও অধ্যক্ষ নিবাস চন্দ্র মন্ডল (৬১) প্রিয়জনদের ভালোবাসা আর ফুলেল শ্রদ্ধা নিয়ে চলে গেলেন পরলোকে। সোমবার তিনি মস্তিষ্কের রক্তক্ষরণজনিত কারণে অসুস্থ হয়ে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি হন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার বিকেলে তার মৃত্যু হয় (ওম দিব্যান্ লোকান্ স গচ্ছতু)। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, দুই কন্যা ও এক পুত্রসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।
শিল্পী নিবাস চন্দ্র মণ্ডল নব্বই দশক থেকে কিংশুক ও স্বরগম সংগীত প্রতিষ্ঠানের সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন। এরপর তিনি ২০০১ সালে স্বরলিপি সংগীত শিক্ষা কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করেন। এরপর থেকে আমৃত্যু এ প্রতিষ্ঠানে অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করেছেন। পাশাপাশি তিনি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ছিলেন।
শিল্পীর প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানাতে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি, জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, উদীচী, চাঁদেরহাট, বিবর্তন, সুরধুনী, পুনশ্চ, অগ্নিবীণা কেন্দ্রীয় সংসদসহ অন্যান্য সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ তার বারান্দী মোল্লাপাড়ার বাসায় আসেন। সেখানে তার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পাঞ্জলি অর্পণ করেন জেলা শিল্পকলা একাডেমির পরিচালনা পরিষদের সহসভাপতি সুকুমার দাস, সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মাহমুদ হাসান বুলু, জেলা কালচারাল অফিসার হায়দার আলীসহ পরিচালনা পরিষদ নেতৃবৃন্দ। জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ডিএম শাহিদুজ্জামান ও সাধারণ সম্পাদক সানোয়ার আলম খান দুলুর নেতৃত্বে মৃতের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করা হয়। এছাড়া দেওয়ান মোর্শেদ আলমসহ অন্যন্য নেতৃবৃন্দ অগ্নিবীণার পক্ষে শেষ শ্রদ্ধা জানান।
সুরধুনীর সভাপতি হারুণ অর রশীদ, তির্যক যশোরের সাধারণ সম্পাদক দীপংকর দাস রতন, চাঁদের হাট যশোরের প্রতিষ্ঠাতা ফারাজী আহমেদ সাঈদ বুলবুল, আশাবরী যশোরের সভাপতি ড. সবুজ শামীম আহসান প্রমুখ তার আত্মার শান্তি ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাতে উপস্থিত ছিলেন।
এদিন রাতে স্থানীয় নীলগঞ্জ মহাশ্মশানে তার শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়। এসময় তার আত্মীয় পরিজন, শুভানুধ্যায়ী, যশোরের সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ অন্যান্য পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।