‘দুর্জয় তারুণ্য দুর্নীতি রুখবেই’

আসাদুজ্জামান নয়ন, বাগআঁচড়া:
‘দুর্জয় তারুণ্য দুর্নীতি রুখবেই’ স্লোগানকে সামনে রেখে দুর্নীতি দমন কমিশন, জেলা সমন্বিত কার্যালয়, যশোরের উদ্যোগে শার্শার সামটা সিদ্দিক্বীয়া ফাজিল (বি.এ) মাদরাসার সার্বিক সহযোগিতায় দুর্নীতি প্রতিরোধ বিষয়ক বিতর্ক,রচনা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বুধবার সকাল ১০টায় মাদরাসা অডিটোরিয়ামে মাওঃ রহমাতুলাহর উপস্থাপনায় অধ্যক্ষ মাওঃ মোমিনুল ইসলামের সভাপতিত্বে এ বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মাদরাসার গভর্নিং বডির সভাপতি ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ।
বিতর্কের বিষয় ছিল ‘দুর্নীতি প্রতিরোধে তরুণ প্রজন্মেও ভূমিকা’। বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাদরাসার আরবি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আধুনিক যুগের কবি হেলাল আনওয়ার, ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক আলহাজ হযরত মাওঃ হাবিবুর রহমান,ইংরেজি প্রভাষক ইকবাল হোসাইন। সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ীরা হলো-১০ম শ্রেণির ছাত্র নাহিদ হাসান, ৮ম শ্রেণির আশরাফুল ইসলাম, ৮ম শ্রেণির শামিমা খাতুন,রচনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীরা ১০ম শ্রেনির আসানুর রহমান, ১০ম শ্রেনির মাহির হাসান, ৮ম শ্রেনির নাইম ইসলাম। এছাড়া বিতর্ক প্রতিযোগিতায় চাম্পিয়ান হয়েছে ৮ম শ্রেণির ছাত্র হাফেজ আবু সাইদ ও তার দল। ১ম শ্রেণি থেকে ১০ম শ্রেণিতে পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রীরা এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। বিজয়ীগণকে অনুষ্ঠানের মাধ্যমে শিক্ষা উপকরণ পুরস্কার প্রদান করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও অন্যান্য অতিথিবৃন্দ।
এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন গভর্নিংবডির দাতা সদস্য ও মাদরাসার এতিমখানার সভাপতি মোঃ লিয়াকত আলী,সদস্য লাল্টু গাজী, আব্দুস সালাম, বাবর আলী, মাদরাসার উপাধ্যক্ষ মাওঃ মাহবুবুর রহমান, সহকারী অধ্যাপক মাওলানা আব্দুর রশিদ, মাওলানা হেলাল আনোয়ার, ইতিহাস প্রভাষক মাওলানা হাবিবুর রহমান, ইংরেজী প্রভাষক ইকবাল হোসেন,বাংলা প্রভাষক ফাতেমানুসরত, আরবী প্রভাষক সাংবাদিক মুহাঃ আসাদুজ্জামান ফারুকী, জান্নাত আরা, লাইব্রেরিয়ান হাজি সেলিম, সহকারী শিক্ষক মোঃ সাইফুল্লাহ, নুরহাসান, খাদিজা খাতুন, শরিফুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম, কম্পিউটার শিক্ষক মোজাম্মেল হক, অফিস সহকারী আবু বকর সিদ্দিকী মুন্সীগঞ্জী ও আবুল হাসান, ইবতেদায়ী প্রধান ইনতাজ উদ্দীন, ইবতেদায়ী সহকারী লিয়াকত আলী প্রমুখ।
প্রধান অতিথি বলেন-তরুণদের দুর্নীতি বিরোধী সামাজিক মূল্যবোধ নিজেদের মধ্যে ধারণ করতে এবং পরে নিজ নিজ কর্মক্ষেত্র থেকে দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলন এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। তরুণদের সাহসিকতা ও সংঘবদ্ধতার মাধ্যমে দুর্নীতি রোধ করা যায়। সাহসী তরুণেরা যদি একত্র হয়, তবে তাদের দলগত শক্তি দিয়ে দুর্নীতি প্রতিরোধ করা যাবে। সবাইকে বলতে হবে, ‘দুর্নীতি করব না এবং সইব না’।