দালালদের সাথে যশোর পাসপোর্ট কার্যালয়ের কিছু কর্মচারীর সখ্যতা!

::নিজস্ব প্রতিবেদক::

যশোর আঞ্চলিক পাসপোর্ট কার্যালয়ের কর্তৃপক্ষের সাথে সোমবার বিকেলে মতবিনিময়সভা করে নাগরিক স্বজন যশোর। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)’র পৃষ্ঠপোষকতায় পরিচালিত সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক)’র সহযোগিতায় সেবায় স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও অবাধ তথ্য প্রবাহ নিশ্চিতে করণীয় শীর্ষক এক মতবিনিময়সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে সভাপতিত্ব করেন আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারি পরিচালক মো. সালাহ্ উদ্দিন।

বক্তব্য রাখেন সনাক সভাপতি অধ্যাপক সুকুমার দাস, সনাক সদস্য প্রফেসর ড. মুস্তাফিজুর রহমান, ইলিয়াছ হোসেন, আমিনুর রহমান, কামাল হোসেন, আকমল হোসেন প্রমুখ।

সভা সঞ্চালনা করেন টিআইবি যশোরের এরিয়া ম্যানেজার এ এইচ এম আনিসুজ্জামান। সভায় পাসপোর্ট অফিসের বর্তমান অবস্থা ও সমস্যা সমাধানে করণীয় বিষয় উপস্থাপন করেন স্বজন সমন্বয়কারি মামুনুর রশিদ।

সেখানে যে বিষয়গুলি উঠে আসে তা হলো- পাসপোর্ট অফিসে দালালদের উপস্থিতি পরিলক্ষিত হয়। দালালদের সাথে পাসপোট অফিসের কিছু কর্মচারীর সখ্যতা রয়েছে বলে দাবি করেছেন সেবা গ্রহীতারা।

সমস্যা সমাধানে যেসব সুপারিশমালা তুলে ধরা হয় তা হলো, পাসপোর্ট অফিসে দালালদের উপস্থিতি বন্ধে নিয়মিত মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ব্যবস্থা গ্রহণ অত্যন্ত জরুরি। সেবা গ্রহিতাদের দাবী পাসপোর্ট অফিসের দালালি কাজে জড়িতদের তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া।

পাসপোর্ট ডেলিভারীর জন্য নারী-পুরুষ আলাদা কাউন্টার চালু করা, পাসপোর্ট অফিসে ব্যবহৃত মাইকটির সাউন্ড যাতে স্পষ্ট হয় তার ব্যবস্থা করা। ৬নম্বর কাউন্টারে পাসপোর্ট আবেদন ফরম জমা দিতে গেলে যাতে কেউ অযথা হয়রানিতে না পড়েন সেটি নিশ্চিত করা। কোথায় কি ভুল আছে তা সুনির্দিষ্টভাবে সেবা গ্রহীতাকে জানিয়ে দেয়া। পাসপোর্ট করার ক্ষেত্রে যাতে নীতিমালা/পরিপত্রে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র হিসেবে জন্ম নিবন্ধন বা জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপির যে কোনো একটির ফটোকপি হলেই তা গ্রহণ করা। টয়লেটসমূহ পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার ব্যবস্থা করা। সেখানকার নারীদের নিরাপত্তা বিবেচনা করে আলাদা আলাদা দরজায় নারী-পুরুষ টয়লেট নিশ্চিত করা। পাসপোর্ট ফরম জমাদানের সময়সীমা এবং পাসপোর্ট প্রদানের টোকেন প্রদানের সময়সীমা বড় আকারে দৃশ্যমান স্থানে টাঙানো। হেল্প ডেস্ক এ দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তি যেন সার্বক্ষনিক সেখানে অবস্থান করেন সেটি নিশ্চিত করা। নিরাপত্তাকর্মীদের আচরণে যেন কেউই অসন্তুষ্টি প্রকাশ না করেন সেটি নিশ্চিত করা। নতুন পাসপোর্ট ও পাসপোর্ট নবায়নের জন্য অনলাইনে আবেদনের জন্য ব্যাপকভাবে প্রচারণা চালানো ও কোনো মাধ্যম ছাড়া যাতে নিজের পাসপোর্ট নিজেই করেন সেজন্য জনসচেতনতা বাড়ানোর উদ্যোগ নেয়া।

সমস্যা সমাধানে যথাসাধ্য উদ্যোগ নেবেন বলে সকলকে আশ্বস্ত করেন সহকারী পলিচালক মো. সালাহ্ উদ্দিন ।

তিনি বলেন, বর্তমানে যাদের বয়স ১৮ বছরের উর্দ্ধে তাদের ক্ষেত্রে জাতীয় পরিচয়পত্র দেখানো বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। আগামী অল্প দিনের মধ্যে পাসপোর্ট সেবা সপ্তাহ করা হবে। তিনি পাসপোর্ট সেবা প্রদানে আচার-আচরণে আরো আন্তরিক হওয়ার জন্য কর্মরত-কর্মচারীদের নির্দেশ দেন।