ঝিনাইদহে যুবকের দুটি অণ্ডকোষ কেটে নিলো দুর্বৃত্তরা

::স্পন্দন ডেস্ক::
বুধবার মধ্যরাতে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে বাইরে বের হন বাদল কুমার বিশ্বাস (৩৬)। উঠান পার হয়ে কলপাড়ে আসা মাত্রই কে বা কারা তার চোখ বেধে ফেলে। এরপর তাকে একটি কলাক্ষেতে নিয়ে দুইটি অণ্ডকোষ কেটে দেয় র্দুর্বৃত্তরা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে এ ভাবেই নিজের অণ্ডকোষ কাটার তথ্য জানান বাদল কুমার। বাদল ঝিনাইদহ সদর উপজেলার হরিশংকরপুর ইউনিয়নের পানামী গ্রামের কুন্ডুপাড়ার নির্মল কুন্ডু বিশ্বাসের ছেলে।

গ্রামবাসী জানায়, বাদল এক সময় গোয়ালপাড়া বাজারে মিষ্টির দোকানে কাজ করতো। দুই মাস আগে তার স্ত্রীর মৃত্যু হলে বাদল মানসিক রোগীতে পরিণত হয়।

পিতা নির্মল কুন্ডু বিশ্বাস জানান, রাত ৩টার দিকে উঠে দেখি ঘরের দরাজ খোলা। এরপর বাদলকে খুঁজতে থাকি। রাতে তাকে কোথাও খুঁজে পায়নি। সকালে বাড়ির পাশের একটি কলা বাগানে রক্তাক্ত অবস্থায় বাদলকে দেখে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করি। কারা এবং কেনো বাদলের অণ্ডকোষ কেটে নিয়েছে তা নির্মল কুন্ডু বিশ্বাস জানাতে পারেননি।

এ বিষয়ে ঝিনাইদহ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা মিজানুর রহমান খান জানান, আমি শুনেছি ছেলেটি মানসিক রোগি। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে।