মণিরামপুরে কিশোর ভ্যানচালক হত্যায় তিনজন রিমান্ডে

:: নিজস্ব প্রতিবেদক ::
যশোর মণিরামপুরের গালদা গ্রামের কিশোর ভ্যানচালক মেহেদী হাসান হত্যা মামলায় আটক তিনজনের একদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। আসামিরা হলো, কেশবপুরের বাজিতপুর গ্রামের শওকত আলীর ছেলে আজগর হোসেন, সরফাবাদ গ্রামের জোহর আলী মোড়লের ছেলে সেলিম মোড়ল ও আজিজ মোড়লের ছেলে জাহাঙ্গীর মোড়ল।

সোমবার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মঞ্জুরুল ইসলাম রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে এ রায় প্রদান করেন।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, ২০১৫ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর সকালে মেহেদী হাসান তার ব্যাটারিচালিত ভ্যান নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। রাতে বাড়ি না ফেরায় খোঁজাখুঁজি করে মেহেদীকে উদ্ধারে ব্যর্থ হয়। পরদিন এ ব্যাপারে মণিরামপুর থানায় একটি জিডি করা হয়।

১৬ সেপ্টেম্বর স্থানীয়দের সংবাদের ভিত্তিতে চালকিডাঙ্গার ফাতেমা নার্সারির পাশ থেকে মেহেদীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তাকে মারপিটের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছিলো। এ ব্যাপারে নিহতের পিতা আব্দুল খালেক বাদী হয়ে অপরিচিত ব্যক্তিদের আসামি করে মণিরামপুর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

মামলাটি প্রথমে থানা পুলিশ পরে সিআইডি পুলিশ তদন্তের দায়িত্ব পায়। মামলার তদন্তকালে হত্যার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে পুলিশ ওই তিনজনকে আটক করে আদালতে সোপর্দ করে সাতদিন করে রিমান্ড চায়। আসামিদের রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে বিচারক প্রত্যেকের একদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।