কালীগঞ্জে অপহৃত কলেজছাত্রী ১২ ঘন্টা পর উদ্ধার, আটক ১

প্রতীকী ছবি

:: কালীগঞ্জ প্রতিনিধি ::
ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে এক কলেজছাত্রীকে (১৭) অপহরণের ১২ ঘন্টা পর তাকে উদ্ধারসহ অপহরণকারী মেহেদী হাসান নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। রোববার দুপুরে কলেজ থেকে ফেরার পথে ওই ছাত্রী অপহৃত হয়।

পরিবারের অভিযোগ পেয়ে পুলিশ ওইদিন রাত সাড়ে ১১টার দিকে যশোরের খড়কি এমএম কলেজের পিছনের একটি বাড়ি থেকে তাদেরকে আটক করে। পরদিন সোমবার দুপুরে ওই ছাত্রীর মেডিকেল পরীক্ষার জন্য তাকে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ বারবাজার ডিগ্রি কলেজে পড়–য়া এ ছাত্রীর বাড়ি উপজেলার বারবাজার বেলাট গ্রামে।

থানা পুলিশ ও অপহরণের শিকার ছাত্রীর ভাই বেলাট গ্রামের রাসেল হোসেন জানান, প্রতিদিনের ন্যায় রোববার সকালে তার বোন বাড়ি থেকে কলেজে যায়। দুপুরে কলেজ ছুটির পরও সে বাড়িতে ফিরে না আসায় তারা বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করেও তাকে না পেয়ে বিকেলে নিখোঁজের বিষয়টি পুলিশকে অবহিত করে।

বারবাজার সূবর্ণসারা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ছবেদ আলী জানান, কলেজছাত্রী নিখোঁজের এমন একটি অভিযোগ পেয়েই তারা বিভিন্ন স্থানে খোঁজখবর নিতে থাকেন। তারা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন অপহরণকারী চক্র যশোরের খড়কি এমএম কলেজের পিছনে একটি বাড়িতে ওই ছাত্রীকে আটকে রেখেছে। এমন সংবাদেই পুলিশ রাত সাড়ে ১১টার দিকে ওই স্থানে অভিযান চালিয়ে ছাত্রীকে উদ্ধারসহ অপহরণকারী চক্রের সদস্য মেহেদী হাসানকে আটক করে। আটক মেহেদীর বাড়ি যশোর সদরের খড়কি এলাকায়।

কালীগঞ্জ থানার অফিসাস ইনচার্জ ইউনুচ আলী জানান, রোববার রাতেই ছাত্রীটিকে উদ্ধারসহ অপহরণ চক্রের এক সদস্যকে আটক করা হয়েছে। তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের পর সোমবার দুপুরে ওই ছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানাতে একটি অপহরণের মামলা হয়েছে।