সেই ভুয়া এএসপি রাকেশ এবার ইজিবাইক নিয়ে চম্পট

:: নিজস্ব প্রতিবেদক ::

যশোরে পুলিশ কর্মকর্তা পরিচয়ে প্রতারক রাকেশ কুমার ঘোষ ও তার সহযোগী এবার একটি ইজিবাইক নিয়ে চম্পট দিয়েছে। গত সোমবার বিকেলে শহরতলীর নতুন খয়েরতলা হাইস্কুল এলাকা থেকে তারা পলাশ আলী খান নামে এক ব্যক্তির ইজিবাইকটি নিয়ে তারা চম্পট দেয়।

যশোর শহরের খড়কি শাহ আব্দুল করিম রোডের বাসিন্দা শাহাজান খানের ছেলে পলাশ আলী খান জানান, বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে তিনি পালবাড়ির গড়াই কাউন্টারের সামনে দিয়ে ইজিবাইক নিয়ে যাচ্ছিলেন। এ সময় দুই ব্যক্তি নতুন খয়েরতলা হাইস্কুল এলাকা হয়ে ক্যান্টনমেন্টে যাওয়ার জন্য তার ইজিবাইক ভাড়া করেন। পরে তিনি নতুন খয়েরতলা হাইস্কুলের পাশে গেলে কৌশলে তার কাছ থেকে ইজিবাইক নিয়ে চম্পট দেন যাত্রীবেশী প্রতারকদ্বয়।

তিনি আরও জানান, প্রতারকদের একজন এসপি বলে পরিচয় দিয়েছিলেন।

এদিকে পুলিশের একটি সূত্র জানায়, অভিযোগ পেয়ে তারা ঘটনাস্থল থেকে সিসি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করেছেন। এতে রাকেশ কুমার ঘোষ নামে একজন প্রতারকের চেহারার একজনকে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে।

সূত্র জানায়, রাকেশ কুমার ঘোষের একটি স্টিল ছবি পলাশ আলী খানকে দেখানো হয়। এ সময় তিনি তাকে এসপি পরিচয়দানকারী ব্যক্তি হিসেবে শনাক্ত করেছেন।

যশোর কোতয়ালি থানার এসআই আমিরুজ্জামান জানান, তারা জানতে পেরেছেন এএসপি পরিচয়দানকারী প্রতারক রাকেশ কুমার ঘোষকে আদালতে সোপর্দের সপ্তাহ খানেক পর তিনি জামিনে ছাড়া পেয়ে গেছেন।

অপরদিকে একটি সূত্র জানায়, প্রতারক রাকেশ কুমার ঘোষের কাছে অবৈধ পিস্তল আছে। তিনি পুলিশ কর্মকর্তা পরিচয় দেওয়ার সময় তার কাছে থাকা পিস্তলও প্রদর্শন করে থাকেন।

উল্লেখ্য, চৌগাছা উপজেলার বহিলাপোতা গ্রামের সন্তোষ ঘোষের ছেলে রাকেশ কুমার ঘোষকে গত ৪ জুলাই বিকেল ৩ টায় যশোর শহরের কালেক্টরেট ক্যান্টিনের সামনে থেকে আটক করেছিলেন এসআই আমিরুজ্জামান। সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) পরিচয়ে প্রতারণা ও নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের অভিযোগে তাকে আটক করা হয়েছিলো। পরে আটক করা হয় তার সহযোগী শহরের ঘোপ নওয়াপাড়া রোডের নুর মোহাম্মদ গাজীর ছেলে নাজমুল ইসলাম নয়নকে। এছাড়া প্রতারক রাকেশ কুমার ঘোষের ঘোপ নওয়াপাড়া রোডের ভাড়া বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার করা হয় পুলিশের পোশাক পরিহিত ছবি, পুুলিশ লেখা দুটি ব্যাচ, পুলিশের একটি নকল আইডি কার্ড, ৪টি র‌্যাঙ্ক ব্যাচ ইত্যাদি।

এ ঘটনায় উল্লিখিত দুজন ছাড়াও বাঘারপাড়া উপজেলার আন্দুলবাড়িয়া গ্রামের রেজাউল ইসলামের ছেলে শামীম রেজার বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা হয়। কিন্তু পুলিশ এখনো পর্যন্ত রাকেশ কুমার ঘোষের সহযোগী শামীম রেজাকে আটক করতে পারেনি। এরই মধ্যে রাকেশ কুমার ঘোষ জামিনে ছাড়া পেয়ে এসপি পরিচয়ে ইজিবাইক নিয়ে চম্পট দেয়ায় বিষয়টি পুলিশকে ভাবিয়ে তুলেছে।