আরো দুটি ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছে উত্তর কোরিয়া

ফাইল ফটো

:: স্পন্দন ডেস্ক ::
উত্তর কোরিয়ার পূর্ব উপকূলে শুক্রবার সকালে স্বল্পমাত্রার আরো দু’টি প্রজেক্টাইল ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করা হয়েছে বলে দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। এ নিয়ে মাত্র আট দিনে তৃতীয়বারের মতো ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করলো পিয়ংইয়ং।

বিবিসি বলছে, যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়া যৌথ সামরিক মহড়ার যে পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে তার প্রতিবাদে এসব ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাচ্ছে পিয়ংইয়ং। আগামী মাসেই ওই সামরিক মহড়া অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

এদিকে এই আঞ্চলিক সঙ্কট সমাধানে গত বৃহস্পতিবার যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স ও জার্মানি উত্তর কোরিয়াকে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ‘অর্থপূর্ণ’ আলোচনা শুরু করার আহ্বান জানিয়েছে। নিরাপত্তা পরিষদের রুদ্ধদ্বার বৈঠকে দেশগুলো জানিয়েছে, পিয়ংইয়ং তাদের পারমাণবিক কর্মসূচি বন্ধ না করলে তাদের ওপর জোরপূর্বক আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে হবে।

বিবিসি জানায়, শুক্রবার স্থানীয় সময় ভোর ৩টা ২৩ মিনিটে দক্ষিণ হ্যামগিয়ন প্রদেশের ইয়ংঘুন এলাকা থেকে জাপান সাগরের দিকে প্রজেক্টাইল মিসাইল দু’টি উৎক্ষেপণ করা হয়। দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা বলছেন, এগুলো হয়তো নতুন ধরনের স্বল্প মাত্রার ক্ষেপণাস্ত্র।

এর আগে গত বুধবার পূর্ব উপকূলে আরও দুটি স্বল্প মাত্রার ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করে উত্তর কোরিয়া। ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের এই ঘটনাকে দক্ষিণ কোরিয়ার জন্য ‘গুরুতর সতর্কতা’ বলে উল্লেখ করেছে উত্তর কোরিয়া।

এছাড়া গত বৃহস্পতিবারও (২৫ জুলাই) দুটি ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছিলো উত্তর কোরিয়া। গত জুনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উনের মধ্যে সাক্ষাতের পর এটিই ছিলো উত্তর কোরিয়ার প্রথম ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের ঘটনা।

যাই হউক, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, তিনি উত্তর কোরিয়ার এসব ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ নিয়ে মোটেও চিন্তিত নন এবং পিয়ংইয়ংয়ের এ ধরনের তৎপরতা কিম জং উনের সঙ্গে আলোচনায় কোনো প্রভাব ফেলবে না। এর আগে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিমের সঙ্গে দু দুবার বৈঠক করেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। কিন্তু এসব বৈঠক দেশটির পরমাণু কর্মসূচি বন্ধে কোনোরকম প্রভাব ফেলেনি।

সূত্র: বিবিসি