বেনাপোলে আটক রেহানার স্বীকারোক্তি, বিক্রির জন্য অস্ত্র বাড়িতে রেখেছিল স্বামী

:: নিজস্ব প্রতিবেদক ::
যশোরের বেনাপোলে অস্ত্রগুলিসহ আটক রেহানা খাতুন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এ অস্ত্র তার স্বামী কামরুজ্জামান বিক্রির জন্য রেখে দিয়েছিল। তাদের পরিচিত দুইজন ভারত থেকে এ অস্ত্র এনে দিয়েছিল বলে জবানবন্দিতে তিনি জানান।

সোমবার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সাইফুদ্দীন হোসাইন আসামির এ জবানবন্দি গ্রহণ শেষে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন। রেহানা কৃষ্ণপুর গ্রামের কামরুজ্জামানের স্ত্রী।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, ৪ আগস্ট মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর ‘খ’ সার্কেল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কামরুজ্জামানের বাড়িতে অভিযান চালায়।

এ সময় বাড়ি থেকে ৫ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার ও রেহানা খাতুনকে আটক করা হয়। রেহানাকে জিজ্ঞাসাবাদে সে স্বীকার করে তার ঘরে অস্ত্র আছে। এরপর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করে। এরপর পুলিশ এসে রেহানার দেখিয়ে দেয়া স্থানে তল্লাশি করে একটি বক্সে বিশেষ কায়দায় রাখা চার রাউন্ড গুলি লোড অবস্থায় একটি পিস্তল উদ্ধার করা হয়।

এ ব্যাপারে এসআই শরিফুল ইসলাম বাদী হয়ে অস্ত্র আইনে বেনাপোল পোর্ট থানায় একটি মামলা করেন। সোমবার রেহানাকে আদালতে সোপর্দ করা হলে সে স্বীকারোক্তি জবানবন্দি দেয়।