মেয়েকে বাঁচাতে পারলেন না বাবা, প্রাণ কাড়লো ঘাতক ট্রাক

ঘাতক ট্রাক

এম আলমগীর, বাঁকড়া (ঝিকরগাছা)

মেয়েকে বানাতে চেয়েছিলেন কোরআনে হাফেজ। সেই আশায় ভর্তি করেছিলেন মাটিকোমরা হাফিজিয়া মাদ্রাসায়। কিছুদিন যাবৎ মেয়ে দাঁতের সমস্যায় ভুগছিলো। তাই চিকিৎসা করিয়ে সুস্থ করার লক্ষ্যে নিয়ে গিয়েছিলেন ঝিকরগাছার বাঁকড়ায় চিকিৎসকের কাছে। এ যাওয়াই তাদের কাল হয়ে দাঁড়ায়। মেয়েকে শেষ রক্ষা করতে পারেননি। চিকিৎসা শেষে বাবা ফিরেছেন মেয়ের লাশ নিয়ে। ফেরার পথে এক ঘাতক ট্রাক কেড়ে নেয় চার বছরের শিশু মেয়ের প্রাণ। এ ঘটনায় গুরুতর অবস্থায় বাবার জায়গা হয় হাসপাতালে।

বুধবার যশোরের ঝিকরগাছায় হাড়িখালি সড়কের বিষ্ণুপুর গ্রামের মোস্তফা মেম্বরের ইটের ভাটার সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত ফাতেমা মাটিকোমরা গ্রামের ইদ্রিস ঢালির মেয়ে এবং মাটিকোমরা হাফিজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষার্থী। এ ঘটনায় বাবা ইদ্রিস ঢালি (৪৫) ও একই গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য ফয়জুর রহমান (৫৫) গুরুতর আহত হয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ইদ্রিস ঢালি তার মেয়ে ফাতেমা ও সাবেক ইউপি সদস্য ফয়জুর রহমান ঝিকরগাছা থেকে চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফেরার পথে বাঁকড়া-হাড়িখালি সড়কের বিষ্ণুপুর গ্রামের মোস্তফা মেম্বরের ভাটার কাছে পৌঁছালে অপরদিক থেকে আসা একটি ট্রাক (ঢাকা মেট্রো-ট ১১-১৭-৯৯) তাদের চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই শিশু ফাতেমা নিহত হয়। পরে গুরুতর আহতাবস্থায় স্থানীয়রা উদ্ধার করে নিহত ফাতেমার বাবা ইদ্রিস ঢালি ও সাবেক ইউপি সদস্য ফয়জুরকে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।

বাঁকড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই মো. মিজানুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ঘাতক ট্রাকটি আটক করা হয়েছে। কিন্তু চালক পালিয়ে গেছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।