যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ৫শ’ কিট দেয়ার ঘোষণা মেয়র রেন্টুর

:: নিজস্ব প্রতিবেদক ::

যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ডেঙ্গুজ্বর পরীক্ষায় ব্যবহৃত ৫০০টি কিট এনএস-১ দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন পৌরমেয়র জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু। বৃহস্পতিবার পৌরসভার হলরুমে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ ঘোষণা দেন।

যশোর শহরে এডিস মশা ও ডেঙ্গু প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধি ও করণীয় বিষয়ে মতবিনিময়ে তিনি বলেন, গত ২৩ জুলাই মশক নিধনের জন্য বিশেষ অভিযান শুরু করা হয়। এ অভিযান আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে। শহরের ভেতরে ভাঙড়ি, টায়ারসহ বিভিন্ন বর্জ্য অপসারণ করা হবে। ডেঙ্গু রোগীর সুচিকিৎসা দেয়ার জন্য প্রয়োজনে চালু করা হবে হট লাইন। শহরকে ডেঙ্গু মুক্ত করার জন্য বাইরের দেশ থেকে উন্নত মেডিসিন এনে আধুনিক স্প্রে করা হবে মশা নিধনের জন্য। ডেঙ্গু নির্মূল না হওয়া পর্যন্ত সাধ্যমত কাজ চালিয়ে যাবেন বলে তিনি জানান।

তিনি আরো জানান, যশোর পৌর এলাকায় ২৬ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে। তবে এর মধ্যে ২৫ জনই ঢাকা থেকে আসা। এর আগে ডেঙ্গু প্রতিরোধে যশোর পৌরসভা থেকে ১৩টি কার্যক্রম করার কথা উল্লেখ করা হয়।

এ সময় বক্তব্য দেন যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক আবুল কালাম আজাদ লিটু, সিভিল সার্জন দিলীপ কুমার রায়, প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, সহসভাপতি আনোয়ারুল কবীর নান্টু, সম্পাদক আহসান কবীর, কালের কণ্ঠের বিশেষ প্রতিনিধি কবি ফখরে আলম, গ্রামের কাগজের সম্পাদক মবিনুল ইসলাম মবিন, দৈনিক স্পন্দনের নির্বাহী সম্পাদক মাহাবুব আলম লাবলু, প্রেসক্লাব যশোরের দফতর সম্পাদক তৌহিদ জামান, যশোর পৌরসভার প্যানেল মেয়র হাবিবুর রহমান চাকলাদার মনি, কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর আহমেদ সাকিল, ইত্তেফাকের যশোরস্থ স্টাফ রিপোর্টার ফারাজী আহমেদ সাঈদ বুলবুল, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি সাজ্জাদ গনি খান রিমন, যুগান্তরের যশোর ব্যুরো প্রধান ইন্দ্রজিৎ রায়, লোক সমাজের ফটো সাংবাদিক হানিফ ডাকুয়া প্রমুখ।