যশোরে ঈদে ডেঙ্গু রোগী বেড়ে যাওয়ার আশংকায় প্রস্তুতি

:: বিল্লাল হোসেন ::
যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত নতুন ২৪ জন ভর্তি হয়েছেন। এর মধ্যে শুক্রবার সকাল থেকে শনিবার সকাল ৭টা পর্যন্ত ভর্তি হন ১৫ জন। আর এ সময়ের পর থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত ভর্তি হয়েছেন বাকি ৯ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী। এদিন কোনো রোগীকে ছাড়পত্র দেয়া হয়নি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আবুল কালাম আজাদ লিটু জানান, বর্তমানে হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত ১০৭ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ঈদ উল আজহার ছুটিতে মানুষ ঢাকা ছেড়ে আসার কারণে রোগীর সংখ্যা বাড়তে পারে। এমন ধারণায় ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।

এদিকে, ডেঙ্গু জ্বরের পরীক্ষা অব্যাহত রাখতে সহায়তার হাত বাড়িয়েছেন ডেন্টাল সার্জনস ফোরাম যশোর জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ। শনিবার সকালে সংগঠনের সভাপতি ইয়াকুব আলী মোল্লা ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক আবুল কালাম আজাদ লিটুর কাছে ৩০ হাজার টাকার চেক প্রদান করেছেন ডেঙ্গু পরীক্ষায় ব্যবহৃত কিট এনএস-১ কেনার জন্য।

আবুল কালাম আজাদ লিটু জানান, ডেঙ্গু রোগী বাড়তে থাকায় চরম বিপাকে আছি। কেন না জায়গার তুলনায় রোগী বাড়ছে কয়েকগুণ বেশি। তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, ঈদুল আজহার ছুটিতে মানুষ ঢাকা ছেড়ে নিজ বাড়িতে আসছেন। ফলে যশোরে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা অনেকাংশে বাড়বে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তাই আগে থেকেই প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। তিনটি ডেঙ্গু মনিটরিং সেলের সদস্যরা সব সময় সজাগ থাকবে। নতুন করে আরো একটি ভবন তৈরি করা হয়েছে। এছাড়া ৭৭৩টি কিট এনএস-১ রিজার্ভে রাখা রয়েছে যাতে করে রোগী ভর্তি পর চিকিৎসাসেবায় কোনো প্রকার ত্রুটি না হয়।

যশোরের সিভিল সার্জন দিলীপ কুমার রায় জানান, গত ২৪ ঘন্টায় আরো ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। বর্তমানে যশোরে ডেঙ্গু রোগী ৩৭৭ জন। ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত রোগীদের বিষয়ে স্বাস্থ্য বিভাগ সজাগ রয়েছে। যারা বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিসাধীন রয়েছেন প্রতিনিয়ত তাদের খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে।