ঝিকরগাছার নাভারণে জমজমাট জুয়ার আসর

:: রকিব উদ্দিন ::

যশোরের ঝিকরগাছার নাভারণে চলছে জমজমাট জুয়ার আসর। উপজেলার নাভারণ ইউনিয়নের কুন্দিপুর মাঠপাড়ায় বেত্রবতী নদীর ধারে পলিথিনের তৈরি দুইটি খুপড়িতে চলছে এ জুয়ার আসর। প্রতিদিন সকাল ১০টার দিকে শুরু হওয়া জুয়ার আসর চলে সন্ধ্যা অবধি। আসরে মদ পানও চলে সমানতালে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, উপজেলার নাভারণ পুরাতন বাজার হতে কুন্দিপুর মাঠপাড়া রাস্তায় রেললাইন পার হয়ে কিছুদূর গেলে মোস্তফা হাসান ফিরোজের আম বাগানের দক্ষিণ-পশ্চিম কোণে চলছে জুয়ার আসর।

বেত্রবতী নদীর ধারে বাঁশবাগানে পলিথিন দিয়ে তৈরি দুটি খুপড়িতে জুয়াড়িরা নির্ভয়ে দিনভর জুয়া খেলে।

এলাকার লোকজন জানান, যারা এ জুয়ার আসরের নেতৃত্ব দিচ্ছেন এরমধ্যে নাভারণ পুরাতন বাজারের সততা বরফ কলের মালিক আহসান কবীর, ঝিকরগাছার আলমগীর হোসেন, জাহিদুল ইসলাম, নবীবনগরের আমিনুর রহমান উল্লেখযোগ্য। আসর পাহারা দেয় ৮ জন। জুয়াড়ি বাদে সন্দেহভাজন হলে তাকে গতিরোধ করা হয়, যেতে দেয়া হয় না ওই এলাকায়।

শার্শার নাভারণ রেল বাজার এলাকা থেকে আসা জুয়াড়ি শাহিনূর রহমান জানান, এখানে রানিং, তিন কার্ড (রাণী কার্ড) ও কাচ্ছি খেলা হয়। তার মতে কাচ্ছি খেলাতে অনেক টাকার কারবার হয়। জুয়াড়িদের দুপুরে দামি খাবার ও সিগারেট দেয়া হয়।

শাহিন আরো জানান, এখানে নির্ভয়ে খেলা করা যায়। কারণ যেখানে টাকা দিলে ভয় থাকে না সেখানে টাকা দেয়া হয়। ফলে থানা ও ফাঁড়ি পুলিশ আসবে না, একমাত্র র‌্যাব ছাড়া জুয়ার আসরে কেউ হানা দিবে না বলেও দাবি করেন এ জুয়াড়ি।

কুন্দিপুর মাঠপাড়া এলাকার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক গৃহবধূ অভিযোগ করেন, জুয়ার আছরের কারণে এলাকার মহিলারা নদীতে গোসল ও অন্যান্য কাজে যেতে পারেন না।

নাভারণ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামাল হোসেন জানান, তিনি জুয়ার আছরের সাথে সম্পৃক্ত না। তবে ওখানে জুয়ার আছর চলে তা তিনি জানেন।

ঝিকরগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুর রাজ্জাক বলেন, মাস দেড়েক আগে জুয়ার আসরটি আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছিল। কিন্তু আবার শুরু করেছে সেটা আমার জানা নেই। তিনি এ ব্যপারে শিগগির ব্যবস্থা নিবেন।