কালীগঞ্জে গৃহবধূকে জবাই করে হত্যা

:: কালীগঞ্জ প্রতিনিধি ::

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে আয়েশা খাতুন মিম (১৮) নামে এক গৃহবধূকে জবাই করে হত্যা করা হয়েছে। শুক্রবার দুপুর আড়াইটার দিকে উপজেলার কাষ্টভাঙ্গা গ্রামের একটি লিচু বাগান থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত গৃহবধূ ওই গ্রামের দিন মজুর ইদ্রিস আলীর মেয়ে।

জানা যায়, দুই মাস আগে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে মিমের সাথে পার্শ্ববর্তী রঘুনাথপুর গ্রামের হাশেম আলীর ছেলে এখলাস উদ্দিনের বিয়ে হয়। প্রেম করে বিয়ে করায় ছেলের পরিবার বিয়ে অস্বীকার করলে মিম কাষ্টভাঙ্গা গ্রামে তার বাবার বাড়িতেই থাকতো।

নিহত মিমের বাবা ইদ্রিস আলী জানান, বিয়ের পর থেকেই ছেলের পরিবার বিয়ে মেনে না নেয়ায় মেয়ে তার বাড়িতেই থাকতো। বৃহস্পতিবার বিকেলে তার জামাই এখলাস তাদের গ্রামে এসে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তার মেয়ে মিমকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর মিম রাতে আর বাড়িতে ফিরে আসেনি। তাদের ধারণা ছিল মেয়েকে তার জামাই শ্বশুর বাড়িতে নিয়ে গেছে।

পরদিন শুক্রবার সকালে তিনি তার জামাই এখলাসের বাড়িতে গিয়ে দেখেন সেখানে তার মেয়ে নেই এবং মেয়ের কথা জিজ্ঞাসা করতেই জামাই বাড়ির লোকজন তাকে উল্টোপাল্টা কথা বলায় বাড়িতে ফিরে আসেন। এরপর দুপুরে কাষ্টভাঙ্গা গ্রামের মাঠের মধ্যে একটি লিচু বাগানে গৃহবধূ মিমের গলাকাটা মৃতদেহটি পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশকে খবর দেয়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশটি উদ্ধার করে এবং মৃতদেহটি ওই গ্রামের মিমের বলে সনাক্ত করেন। ঘটনার পর থেকেই তার স্বামী পলাতক রয়েছে।

কালীগঞ্জ থানার ওসি ইউনুস আলী জানান, উপজেলার কাষ্টভাঙ্গা গ্রামের একটি লিচু বাগান থেকে মিম নামে এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জবাই করে হত্যা করা হয়েছে। পুলিশের ধারণা মিমের স্বামী এখলাস এ হত্যাকাণ্ড ঘটাতে পারে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।