ঝাঁপার ভাসমান সেতু পরিদর্শনে ডেপুটি স্পিকার

::নিরঞ্জন চক্রবর্তী, নেংগুড়াহাট::

জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বী মিয়া এমপি শনিবার যশোরের মণিরামপুর উপজেলার রাজগঞ্জ ঝাঁপা বাঁওড়ের উপর নির্মিত বঙ্গবন্ধু ভাসমান সেতু ও জেলা প্রশাসক ভাসমান সেতু পরিদর্শন করেছেন। এ সময় তিনি এবং স্থানীয় সুধীজনদের সাথে মতবিনিময় করেন।

দুপুরে আকস্মিক সফরে রাজগঞ্জে আসেন ডেপুটি স্পিকার। এ সময় যশোরের এডিশনাল এসপি মো. গোলাম রব্বানী, মণিরামপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহসান উল্লাহ শরিফী, মণিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম, ঝাঁপা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. সামছুল হক মন্টু, চালুয়াহাটী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ সরদার, ঝাঁপা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ মাস্টার খোরশেদ আলম, সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা কওছার আহমেদ, রাজগঞ্জ ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল লতিফ, আওয়ামী লীগ নেতা ও সমাজসেবক আব্দুল হক তুহিন, আকরাম হোসেন খান, ঝাঁপা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি সোহেল রানা, সাধারণ সম্পাদক কামাল উদ্দিন, চালুয়াহাটী ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক এমএম ইমরান খান পান্না, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আশিকুর রহমান আশিক, বঙ্গবন্ধু ভাসমান সেতু বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি আব্দুল জলিল, সম্পাদক আশরাফুজ্জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক মাস্টার আহাদ আলী, সদস্য গোলাম রসুল, আব্দুর রশীদ, গোলাম মোস্তফা, আবুল বাশার, রুবেল, ইকবাল হোসেন, আবুল কাসেম দাড়িয়া, সব্রত রায়সহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ নেতাকর্মীবৃন্দ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি ও রাজগঞ্জ পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের, ঝাঁপা ফাঁড়ি পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় ডেপুটি স্পিকার বলেন, যে জাতি নয়মাস যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করতে পারে, সে জাতি ইচ্ছা করলে অনেক কিছু করতে পারে। তারই প্রমাণ দিয়েছে ঝাঁপা গ্রামের মানুষ। তারা মেধা, শ্রম ও অর্থ দিয়ে দর্শনীয় ভাসমান সেতু নির্মাণ করেছেন। এখনে সরকার একটি পর্যটন কেন্দ্র স্থাপনের অর্থ বরাদ্দ দিয়েছে।