ফুলতলায় আসামি পরিবারের হামলায় দুই পুলিশ আহত

::ফুলতলা প্রতিনিধি::

খুলনার ফুলতলা থানার পায়গ্রামকসবা গ্রামে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি ধরতে যেয়ে হামলার শিকার হয়েছেন পুলিশ সদস্যরা। আসামির পরিবারের সদস্যদের হামলায় থানার এএসআই ফজলুল হক জাহিদ এবং এএসআই রাশেদ গুরুতর জখম হন। তাদেরকে ফুলতলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় পুলিশ মহিলাসহ একই পরিবারের ৫জনকে আটক করে রোববার জেলহাজতে প্রেরণ করেছে।

পুলিশ জানায়, শনিবার বিকেলে ফুলতলার পায়গ্রাম কসবা গ্রামের মৃত. তোফাজ্জেল চৌধুরীর ছেলে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি চৌধুরী মনিরুজ্জামান ওরফে শাফীকে আটকের জন্য পুলিশ তার বাড়িতে অভিযান চালায়। এ সময় সাফি চৌধুরী কৌশলে সরে পড়লে তার পরিবারের মহিলা ও কিশোরসহ লোকজন পুলিশের উপর হামলা করে।

এতে এএসআই ফজলুল হক জাহিদ এবং এএসআই রাশেদ গুরুতর জখম হলে তাদেরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এ ব্যাপারে এএসআই ফজলুল হক জাহিদ বাদি হয়ে ৮জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো ৫/৬জন আসামি করে মামলা করেন।

এদিকে ঘটনার পর খুলনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সজিব খান, ওসি মো. মনিরুল ইসলাম, ওসি (তদন্ত) উজ্জল দত্ত’র নেতৃত্বে পুলিশ ওই এলাকায় সাড়াশি অভিযান চালিয়ে এজাহারভুক্ত ৫ আসামিকে আটক করে।

আটককৃতরা হলো চৌধুরী মনিরুজ্জামান ওরফে শাফী (৪৫), তার স্ত্রী মাসুরা বেগম রুপা (৪৩) এবং পুত্র মো. ইমামুল চৌধুরী (১৭), মৃত শেখ আকবার হোসেনের পুত্র শেখ মনিরুল ইসলাম (২৩) ও শেখ আলমগীর হোসেনের পুত্র শেখ জুয়েল (২৪)।

আটককৃতদের গতকাল আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।