যশোরে মেজর জিয়ার মরণোত্তর বিচার দাবি

::নিজস্ব প্রতিবেদক::

যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন বলেছেন, ৭৫ এর ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের নেপথ্য নায়ক মেজর জিয়ার মরণোত্তর বিচার এখন সময়ের দাবিতে পরিণত হয়েছে। রোববার জাতীয় শোক দিবস স্মরণে জেলা তাঁতীলীগের আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার আসামি তারেক জিয়াকে যাবজ্জীবন নয় তাকে ফাঁসি দিতে হবে।

শহরের গাড়িখানায় দোয়া মাহফিলপূর্ব আলোচনাসভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের আহবায়ক গৌরাঙ্গ পাল। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও চৌগাছা-ঝিকরগাছা আসনের সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাড. মনিরুল ইসলাম মনির, জেলা আওয়ামী লীগের শ্রম সম্পাদক কাজী আব্দুস সবুর হেলাল, ক্রীড়া সম্পাদক অ্যাড. আবু সেলিম রানা, উপদফতর সম্পাদক ওহিদুল ইসলাম তরফদার, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান মিন্টু, সাবেক উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড. সেতারা খাতুন, জেলা যুবমহিলা লীগের সভাপতি মঞ্জুন্নাহার নাজনীন সোনালী, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লুৎফুল কবীর বিজু প্রমুখ।  সঞ্চালনা করেন তাঁতীলীগের সদস্য সচিব আব্দুর রহমান কাকন।

আলোচনাসভায় শহিদুল ইসলাম মিলন আরো বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে দেশ স্বাধীনের মাত্র সাড়ে তিন বছরের মাথায় সপরিবারে হত্যা করা হয়। সে দিনের স্বঘোষিত হত্যাকারীদের রক্ষার জন্যে ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করে সামরিক শাসক জিয়া।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে অ্যাড. মনিরুল ইসলাম মনির বলেন, শোককে শক্তিতে পরিণত করে আমাদের সামনে এগিয়ে যেতে হবে। শহিদুল ইসলাম মিলন এবং সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগকে আরো শক্তিশালী করে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।

আলোচনাসভা শেষে দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন আওয়ামী লীগ নেতা ফিরোজ খান।