বর আসার আগেই বিয়ে বাড়িতে ইউএনও

::শাকিলা ইসলাম জুঁই, সাতক্ষীরা::

সাজসজ্জা ডেকোরেশন শেষ। বাড়ি ভর্তি আত্মীয়-স্বজন। বাবুর্চিরা পোলাও-বিরানি মাংস রান্নায় ব্যস্ত। বর আসার অপেক্ষায় সবাই। এমন মূহূর্তে হঠাৎ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সরদার মোস্তফা শাহিন পুলিশ নিয়ে উপস্থিত। মুহূর্তেই বিয়ের আনুষ্ঠানিকতার সকল কার্যক্রম বন্ধ। পালিয়ে যায় আত্মীয় স্বজনরাও।

ঘটনাটি সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের চাঁটাই গ্রামের।

স্থানীয়রা জানান, কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের নেঙ্গী গ্রামের বিল্লাল হোসেনের (২৩) সঙ্গে গত দেড় মাস আগে চাটাই গ্রামের আব্দুস সালামের মেয়ে রুবিনা খানমকে (১৪) গোপনে বিয়ে দেয়া হয়। তবে সে সময় বিয়ের কোনো আনুষ্ঠানিকতা হয়নি।

উভয় পরিবারের সম্মতিতে ২৯ আগস্ট বৃহস্পতিবার দুপুরে আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হওয়ার দিনক্ষণ ঠিক হয়। সে অনুযায়ী দাওয়াত দেয়া হয় আত্মীয়-স্বজনদের। দুপুরে বর তার বউকে নিতে আসার কথা ছিল।

তার আগেই বাল্যবিয়ের খবর পেয়ে যায় কালিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সরদার মোস্তফা শাহিন। পুলিশ নিয়ে ওই বাড়িতে হাজির হলে মেয়ের বাবা, ভাইসহ আত্মীয় স্বজন সকলে পালিয়ে যায়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও কালিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহিন জানান, রুবিনা খানম স্থানীয় একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী। বাল্যবিয়ে দেয়ার অপরাধে তার বাবাকে দশ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।