মশার খনি ভৈরব নদে নজর নেই কারো

::মিরাজুল কবীর টিটো::

যশোরে ডেঙ্গু প্রতিরোধে যখন বিভিন্ন স্থানের ঝোপঝাড় পরিষ্কার করছে কর্তৃপক্ষ তখন শহরের ভৈরব নদের জমে আছে কচুরীপনার স্তুপ। যেখান থেকে এডিস মশার জন্ম হওয়ার আশঙ্কা করছেন জনসাধারণ। এমন আশঙ্কা পরিবেশ অধিদফতর ও সিভিল সার্জন অফিসেরও।

তবে ভৈরব নদের কচুরীপনায় এডিস মশা জন্ম নিয়েছে এমন তথ্য মেলেনি বলে দাবি করেছেন যশোর পৌর কর্র্তৃপক্ষ।

ডেঙ্গু প্রতিরোধে সরকারি দফতরগুলো নানমুখি কাজ করছে। বিভিন্ন স্থানের ঝোপঝাড় পরিষ্কার করা, ওষুধ স্প্রেসহ সচেতনতামূলক নানা কার্যক্রম বাস্তবায়িত হচ্ছে। তবে শহরের মাঝ বরারবর বয়ে যাওয়া ভৈরব নদে নজর পড়েনি কারো। ভৈরব নদের মাঝে এডিস মশা জন্ম নেয়ার বিষয়টি অস্বাভাবিক কিছু না বলে মনে করেন পৌরবাসী।

যশোরের সিভিল সার্জন দিলীপ কুমার রায় বলেন, শুধু ভাল পানিতে নয় ঝোপঝাড় জঙ্গলে যদি এডিস মশা জন্ম নিতে পারে। এক্ষেত্রে ভৈরব নদে এডিস মশার জন্ম নেয়া স্বাভাবিক। যশোরে যে হারে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে ভৈরব নদ পরিষ্কার করা জরুরি।

জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের উপপরিচালক শেখ নাজমুল হুদা বলেন, প্লাস্টিকের পট, ডাবের খোলায় যদি এডিস মশা জন্ম নিতে পারে তবে ভৈরবের পানিতে এডিস মশার জন্ম নেয়ার আশঙ্কা আছে। এজন্য ভৈরব থেকে কচুরিপনা অপসারণ করা প্রয়োজন। এটা অপসারণের জন্য যশোর পৌরসভা কর্র্তৃপক্ষকে আমরা বলতে পারি।

এ ব্যাপারে যশোর পৌরসভার সচিব আজমল হোসেন জানান, জমে থাকা স্বচ্ছ পানিতে এডিস মশার জন্ম হয়। তবে ভৈরব নদের এডিস মশার জন্ম নিয়েছে এমন তথ্য পাওয়া যায়নি।