রফতানি ট্রফি পেল আকিজ জুট মিলসসহ ৬৫ প্রতিষ্ঠান

::স্পন্দন ডেস্ক::

২০১৬-১৭ অর্থবছরে রফতানি বাণিজ্যে উলেখযোগ্য অবদান রাখায় আকিজ গ্রুপের আকিজ জুট মিলসসহ বিভিন্ন খাতের ৬৫ প্রতিষ্ঠান জাতীয় রফতানি ট্রফি পেয়েছে।

রোববার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের হাতে ট্রফি তুলে দেন।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) আয়োজিত অনুষ্ঠানে ২৮টি পণ্য খাতের সেরা রফতানিকারক প্রতিষ্ঠানগুলোকে ট্রফি দেওয়া হয়। এর মধ্যে ২৯টি স্বর্ণ, ২১টি রৌপ্য ও ১৬টি ব্রোঞ্জ ট্রফি। সব খাত মিলিয়ে সবচেয়ে বেশি রফতানি আয়ের জন্য হোম ও স্পেশালাইজড টেক্সটাইল খাতের জাবের অ্যান্ড জোবায়ের ফেব্রিক্সকে স্বর্ণ ট্রফি দেওয়া হয়। রফতানিকারকদের উৎসাহিত করতে প্রতিবছর বাণিজ্যমন্ত্রণালয় এ সম্মাননা দেয়।

ট্রফি পেল যেসব প্রতিষ্ঠান: ২০১৬-১৭ অর্থবছরে পাটজাত দ্রব্য খাতে আকিজ জুট মিলস স্বর্ণ, জনতা জুট মিলস রৌপ্য ও করিম জুট স্পিনার্স ব্রোঞ্জ ট্রফি পেয়েছে। তৈরি পোশাক (ওভেন) খাতে রফতানি আয়ে উলেখযোগ্য অবদানের জন্য স্বর্ণ ট্রফি পেয়েছে হা-মীম গ্রুপের প্রতিষ্ঠান রিফাত গার্মেন্টস। একইখাতে ব্রোঞ্জ ট্রফিও পেয়েছে হা-মীম গ্রুপের দ্যাটস ইট স্পোর্টস ওয়্যার। এ খাতে রৌপ্য ট্রফি পেয়েছে এ কে এম নিটওয়্যার। তৈরি পোশাকের নিটওয়্যার খাতে স্কয়ার ফ্যাশনস স্বর্ণ, ফোর এইচ ফ্যাশনস রৌপ্য ও ডার্ড কম্পোজিট টেক্সটাইলস ব্রোঞ্জ ট্রফি পেয়েছে।

সব ধরনের সুতা রফতানি খাতে বাদশা টেক্সটাইলস পেয়েছে স্বর্ণ ট্রফি। কামাল ইয়ার্ন রৌপ্য ও ম্যাকসন স্পিনিং পেয়েছে ব্রোঞ্জ ট্রফি। টেক্সটাইল ফেব্রিকস খাতে এনভয় টেক্সটাইল স্বর্ণ, ফোর এইচ ডাইং অ্যান্ড প্রিন্টিং রৌপ্য ও প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল ব্রোঞ্জ ট্রফি পেয়েছে। টেরিটাওয়েল খাতে নোমান টেরিটাওয়েল মিলস স্বর্ণ ট্রফি পেয়েছে। হিমায়িত খাদ্য খাতে সি মার্ক (বিডি) স্বর্ণ, ব্রাইট সি ফুডস রৌপ্য ও বিডি সি ফুডস পেয়েছে ব্রোঞ্জ ট্রফি।

ক্রাস্ট বা ফিনিশড চামড়া খাতে এস এ এফ ইন্ডাস্ট্রিজ স্বর্ণ ট্রফি পেয়েছে। পিকার্ড বাংলাদেশ চামড়াজাত পণ্য রফতানি খাতে স্বর্ণ ও বি বি জে লেদার গুডস রৌপ্য ট্রফি পেয়েছে। সব ধরনের পাদুকা রফতানি খাতে স্বর্ণ ট্রফি পেয়েছে বে ফুটওয়্যার। আর এফবি ফুটওয়্যার রৌপ্য ও ফুডবেড ফুটওয়্যার ব্রোঞ্জ ট্রফি পেয়েছে।

কৃষি পণ্য (তামাক ব্যতীত) রফতানি খাতে মনসুর জেনারেল ট্রেডিং স্বর্ণ, এলিন ফুডস রৌপ্য ও হেরিটেজ এন্টারপ্রাইজ ব্রোঞ্জ ট্রফি পেয়েছে। প্রক্রিয়াজাত কৃষি পণ্য রফতানি খাতে প্রাণ এগ্রো স্বর্ণ, এলিন ফুড রৌপ্য ও হবিগঞ্জ এগ্রো ব্রোঞ্জ ট্রফি পেয়েছে। ফুল ফলিয়েজ খাতে রাজধানী এন্টারপ্রাইজ স্বর্ণ ট্রফি পেয়েছে। হস্তশিল্প পণ্য রফতানি খাতে কারুপণ্য রংপুর স্বর্ণ, বিডি ক্রিয়েশন রৌপ্য ও ক্লাসিক্যাল হ্যান্ডমেড প্রোডাক্ট ব্রোঞ্জ ট্রফি পেয়েছে।

পাস্টিক পণ্য রফতানিতে বেঙ্গল পাস্টিকস স্বর্ণ, ডিউরেবল পাস্টিকস রৌপ্য ও অলপাস্ট ব্রোঞ্জ ট্রফি পেয়েছে। সিরামিক খাতে শাইনপুকুর সিরামিকস পেয়েছে স্বর্ণ ট্রফি। হালকা প্রকৌশল পণ্য রফতানি খাতে ইউনিগোরি সাইকেল স্বর্ণ, রংপুর মেটাল রৌপ্য ও মেঘনা ইন্নোভা রাবার পেয়েছে ব্রোঞ্জ ট্রফি। ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিক্স পণ্য রফতানিতে এনার্জিপ্যাক ইঞ্জিনিয়ারিং স্বর্ণ ও বি আর বি কেবল রৌপ্য ট্রফি পেয়েছে। মেরিন সেফটি সিস্টেম ও বিএসআরএম স্টিল অন্যান্য শিল্পজাত পণ্য খাতে স্বর্ণ ও রৌপ্য ট্রফি পেয়েছে। ফার্মাসিউটিক্যালস পণ্য রফতানি খাতে স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যাল স্বর্ণ ও ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস রৌপ্য ট্রফি পেয়েছে। কম্পিউটার সফটওয়্যার রফতানিতে সার্ভিস ইঞ্জিন স্বর্ণ ট্রফি পেয়েছে।

ইপিজেডের শতভাগ বাংলাদেশি মালিকানাধীন তৈরি পোশাক রফতানিতে ইউনিভার্সেল জিন্স স্বর্ণ, প্যাসিফিক জিন্স রৌপ্য ও জিন্স ২০০০ ব্রোঞ্জ ট্রফি পেয়েছে। ইপিজেডভুক্ত শতভাগ দেশি মালিকানার অন্যান্য পণ্য ও সেবা খাতে ফারদিন এক্সেসরিস স্বর্ণ, শাশা ডেনিমস রৌপ্য ও আর এম ইন্টারলাইনিংস ব্রোঞ্জ ট্রফি পেয়েছে। প্যাকেজিং ও এক্সেসরিজ খাতে মন ট্রিমস স্বর্ণ, ইউনিগোরি পেপার অ্যান্ড প্যাকেজিং রৌপ্য ও জাবের অ্যান্ড জুবায়ের এক্সেসরিজ ব্রোঞ্জ ট্রফি পেয়েছে।

অন্যান্য প্রাথমিক পণ্য রফতানি খাতে অর্কিড ট্রেডিং স্বর্ণ, বাং চুং ট্রেড অ্যান্ড ট্যুরিজম রৌপ্য ও বেঙ্গল পলি অ্যান্ড পেপার স্যাক ব্রোঞ্জ ট্রফি পেয়েছে। এছাড়া অন্যান্য সেবা রফতানি খাতে মীর টেলিকম স্বর্ণ ট্রফি পেয়েছে। নারী উদ্যোক্তা ও রফতানিকারকদের জন্য সংরক্ষিত খাতে মুন্নু সিরামিকস স্বর্ণ ও নিহাও ফুড কোম্পানি রৌপ্য ট্রফি পেয়েছে।