শংকরপুরের সানি হত্যা মামলা সিডিআই মতি ও ভুট্টোর আত্মসমর্পণ

::নিজস্ব প্রতিবেদক::

যশোর শহরের শংকরপুরের প্লাস্টিক কারখানা শ্রমিক সানি হত্যা মামলায় দুইজন আদালতে আত্মসমর্পণ করেছে। রোববার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রট আদালতের বিচারক গৌতম মল্লিক আসামিদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।

আসামিরা হলো শহরের শংকরপুর গোলপাতা মসজিদ এলাকার তকব্বর শেখের ছেলে মতিয়ার রহমান ওরফে সিডিআই মতি ও আলমগীর শেখের ছেলে ভূট্ট। আত্মসমর্পণকৃত দুইজনের ৭দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হবে বলে জানিয়েছেন তদন্ত কর্মকর্তা।

একই সাথে এর আগে আটক এ মামলায় শীর্ষ সন্ত্রাসী সাহেদ হোসেন নয়ন ওরফে হিটার নয়নের জামিনের আবেদন না মঞ্জুর করা হয়েছে।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, গত ১৮ জুন সন্ধ্যায় খুলনার উদ্দেশে বাড়ি থেকে বের হন শংকরপুরের মতিয়ার রহমান ধনুর ছেলে সানি। শংকরপুর কেন্দ্রীয় বাসটার্মিনালের পূর্বপাশে পৌঁছালে শীর্ষ সন্ত্রাসী সাহেদ হোসেন নয়ন ওরফে হিটার নয়নের নেতৃত্বে সানির উপর হামলা চালানো হয়। তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ও হাতুড়ি পেটা করে মারাত্মক জখম করে তারা। এরপর তাকে লক্ষ্য করে বোমা নিক্ষেপ করা হয়। বিস্ফোরিত বোমার বিকট শব্দে আশপাশের লোকজন চারিদিকে ছুটাছুটি করতে থাকে।

এরই মধ্যে খবর পেয়ে সানির বোন সম্পা খাতুন বাড়ি থেকে এসে তাকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। কিন্তু হাসপাতালে নেয়ার পরই কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ব্যাপারে নিহতের বোন সম্পা খাতুন বাদী হয়ে ৮ জনের নাম উল্লেখসহ অপরিচিত ৪/৫ জনকে আসামি করে কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। মামলাটি প্রথমে থানা পুলিশ পরে সিআইডি পুলিশ তদন্তের দায়িত্ব পায়। এজাহারভুক্ত আসামি মতি ও ভুট্ট পুলিশী গ্রেফতার এড়াতে গতকাল আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করে।

বিচারক আসামিদের জামিন আবেদনের শুনানি শেষে জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।