চিকিৎসক ও জনবল সংকটে কালীগঞ্জ হাসপাতালে রোগীদের ভোগান্তি

::জামির হোসেন, কালীগঞ্জ::

চিকিৎসক ও জনবল সংকটে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সেবা নিতে আসা রোগীদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। উপজেলার প্রায় পাঁচ লাখ মানুষের স্বাস্থ্য সেবার একমাত্র আশ্রয়স্থল কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স।

জানা যায়, হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার এবং উপসহকারী মেডিকেল অফিসারের ২৬টি পদের বিপরীতে চিকিৎসক রয়েছে মাত্র ৪জন। অ্যানেস্থেশিয়া বিশেষজ্ঞ না থাকায় দীর্ঘদিন যাবৎ বন্ধ রয়েছে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অপারেশন থিয়েটার।

এতে চিকিৎসা সেবা বঞ্চিত হয়ে সাধারণ মানুষকে বাধ্য হয়ে যেতে হচ্ছে প্রাইভেট ক্লিনিকে। ফলে খরচের সাথে সাথে বেড়েছে দুর্ভোগ ও হয়রানি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বহির্বিভাগে চিকিৎসা নেয়ার জন্য প্রতিদিন ৩০০ থেকে ৩৫০ জন রোগীর ভীড় জমে। ৫০ শয্যার হাসপাতাল হলেও রোগী ভর্তি থাকে আরও অনেক বেশি। এতে রোগীদের চাপ সামাল দিতে হিমশিম খায় কর্তৃপক্ষ। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক না থাকায় কোনো মতে দেয়া হয় চিকিৎসা সেবা। সংশ্লিষ্ট ডাক্তারদের দায়িত্বে অবহেলার কারণে কালীগঞ্জ হাসপাতালের চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের ভোগান্তি দিন দিন বেড়েই চলেছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, সকাল থেকে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়েও ডাক্তার দেখাতে পারছে না রোগীরা। জনবল সংকটে হাসপাতালের সামনে দীর্ঘ লাইন পড়ে যায়। একে তো চিকিৎসক সংকট, তারপরও আবার সময়মতো ডাক্তার না আসায় অতিষ্ঠ চিকিৎসা সেবা নিতে আসা সাধারণ মানুষ।

হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার অরুন কুমার দাস বলেন, আমরা রোগীদের সর্বোচ্চ সেবা দেয়ার চেষ্টা করি। ডাক্তার ও জনবল সংকটের কারণে এমন অবস্থার সৃষ্টি হচ্ছে।

এ ব্যাপারে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (টিএইচএ) হুসাইন সাফায়াত জানান, বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। আশা করি দ্রুত এ সমস্যা সমাধান হতে পারে।