মণিরামপুরে গ্রাহকের অর্ধকোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে সেই দুই ব্যাংক কর্মকর্তা বরখাস্ত

::নিজস্ব প্রতিবেদক, মণিরামপুর::

যশোরের মণিরামপুরে জনতা ব্যাংকের গ্রাহকদের প্রায় অর্ধকোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে অবশেষে সেই দুই কর্মকর্তাকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। দুই সদস্যের টিম দীর্ঘ তদন্ত করে অভিযোগের সত্যতা পেয়ে তাদের দাখিলকৃত প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে জনতা ব্যাংক ঢাকা প্রধান কার্যালয় থেকে অভিযুক্ত কর্মকর্তা (ক্যাশ) আলমগীর হোসেন রিংকু এবং আশিষ কুমার ঘোষকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়।

মণিরামপুর জনতা ব্যাংকের ম্যানেজার এমরান হোসেন শামিম বৃহস্পতিবার এ আদেশের কপি হাতে পেয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন।

জানা যায়, জনতা ব্যাংক মণিরামপুর শাখার অফিসার (ক্যাশ) আলমগীর হোসেন রিংকু এবং আশিষ কুমার ঘোষের বিরুদ্ধে অন্তত ১৫ জন গ্রাহকের প্রায় অর্ধকোটি টাকা একাউন্টে জমা না করে আত্মসাতের অভিযোগ ওঠে। বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর অভিযুক্ত ওই দুই কর্মকর্তা অতিগোপনে ভুক্তোভোগী গ্রাহকদের টাকা পরিশোধ করেন।

এ ব্যাপারে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হলে প্রথমে যশোর এরিয়া অফিস থেকে দুই সদস্যের তদন্ত দল বিষয়টি তদন্ত করে অভিযোগের সত্যতা পায়। এদের মধ্যে রিংকুকে যশোর এরিয়া অফিসে ওএসডি এবং আশিষকে নাভারণ শাখায় বদলি করা হয়।

পরবর্তীতে ঢাকা প্রধান কার্যালয় থেকে দুই সদস্যের তদন্ত প্রতিনিধি দল সরেজমিনে মণিরামপুর জনতা ব্যাংক শাখায় তদন্ত করেন।

মণিরামপুর জনতা ব্যাংক শাখার ম্যানেজার এমরান হোসেন শামিম জানান, দীর্ঘ তদন্ত করে ওই দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে গ্রাহকের মোট ৩৬ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ প্রমাণিত হয়। যে কারণে তদন্ত শেষে ওই তদন্তকারী দলের দাখিলকৃত প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার ঢাকা প্রধান কার্যালয় থেকে অভিযুক্ত কর্মকর্তা (ক্যাশ) আলমগীর হোসেন রিংকু এবং আশিষ কুমার ঘোষকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্তের আদেশ সম্বলিত চিঠিটি তিনি হাতে পেয়েছেন।