তিন শ্রেণির মানুষ দেশের সম্পদ লুট করে ধনী হচ্ছে

::নিজস্ব প্রতিবেদক::

যশোরে বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমাবেশে কেন্দ্রীয় নেতারা বলেছেন, বাংলাদেশ এখন উচ্চ বৈষম্যের দেশে পরিণত হয়েছে। দুর্নীতি আর লুটপাটের মাধ্যমে তিন শ্রেণির মানুষ এ দেশের কৃষক, শ্রমিক ও মেহনতী মানুষের সম্পদ লুট করে ধনী হচ্ছেন। এ তিনটি শ্রেণি হলো অসৎ রাজনীতিক সরকারের আমলা ও ব্যবসায়ী। ফলে সমাজে ব্যাপক আয় বৈষম্য বিরাজ করছে। যেটি সম্পূর্ণভাবে মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পরিপন্থী।

‘ফ্যাসিবাদী দুঃশাসন রুখে দাঁড়াও, বাম গণতান্ত্রিক বিকল্প গড়ে তোল’ এমন শ্লোগানে সোমবার বিকেলে শহরের দড়াটানা ভৈরব চত্বরে বাম গণতান্ত্রিক জোট যশোর শাখার সমাবেশে তারা এ কথা বলেন।

বক্তারা বলেন, স্বাধীনতার পূর্বে ২২ পরিবারের কাছে সমস্ত কুক্ষিগত ছিল। আর এখন ২৫৫ পরিবারের উদ্ভব হয়েছে। যারা এখন দেশের মানুষকে শোষণ করছে। লুটপাট করে সম্পদ বিদেশে পাচার করছে।

বক্তারা আরো বলেন, রোহিঙ্গাদের সংকটটি মানবিক। কিন্তু রোহিঙ্গারা বাংলাদেশের নিরাপত্তার জন্য বড় ধরণের একটি সংকট। গত দুই বছরে একজন রোহিঙ্গাকেও ফেরত পাঠাতে পারেনি বাংলাদেশ। রোহিঙ্গাদের দ্রুত ফেরানো না গেলে সংকট আরো বাড়বে।

সমাবেশে বাম গণতান্ত্রিক জোট যশোর শাখার সমন্বয়ক ও কমিউনিস্ট লীগ জেলা শাখার সম্পাদক তসলিমুর রহমানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, সিপিবির কেন্দ্রীয় সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের কেন্দ্রীয় সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য রনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, বাসদের কেন্দ্রীয় বর্ধিত ফোরামের সদস্য খালেকুজ্জামান লিপন, বাসদের (মার্কসবাদী) কেন্দ্রীয় সদস্য উজ্জল রায়, গণসংহতি আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য বাবু ভূইয়া, সিপিবির যশোর জেলা সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল হোসেন, বাসদের (মার্কসবাদী) যশোর জেলা সমন্বয়ক হাচিনুর রহমান প্রমুখ।