পাঁচ তলার ছাদ থেকে ফেলানো টিভি মাথায় পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

::নিজস্ব প্রতিবেদক::

যশোরে ৫ তলার ছাদ থেকে ফেলানো টেলিভিশন মাথায় পড়ে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা ১ টার দিকে শহরের মিশনপাড়ার মিজানুর রহমান মিজানের বাড়ি ঘটনাটি ঘটে। নিহত আব্দুল কুদ্দুস আলী (৪৫) সদর উপজেলার রুপদিয়া গ্রামের নুরুন্নবীর ছেলে। তিনি খোলাডাঙ্গা মুন্সিপাড়ার মুফতি গাজীর বাড়িতে সপরিবারে ভাড়া থাকতেন।

ঘটনার সাথে জড়িত আরেক শ্রমিক আনিসুর রহমানকে হাসপাতাল থেকে আটক করেছে কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশ। তিনি কেশবপুর উপজেলার সাগর দত্তকাটি গ্রামের মৃত সবেদ আলীর ছেলে।

এসআই এইচএম মাহমুদ জানান, ঘটনার দিন আব্দুল কুদ্দুস ও আনিসুর রহমান মিলে মিজানের বাড়ির ছাদ পরিস্কারের কাজ করছিলেন। কাজের ফাঁকে কুদ্দুস নিচে চলে আসে। কিন্তু জঙ্গলের পাশে গিয়েছে তা জানতেন না শ্রমিক আনিসুর। তিনি ছাদ থেকে একটি পুরাতন টেলিভিশন নিচে ফেললে সেটি কুদ্দুসের মাথায় পড়ে। আঘাতে তার মাথা ফেটে যায়।

আনিসুর রহমান জানান, বাড়ির মালিক মিজানুর নিচে থেকে দাঁড়িয়ে বলেন এখানে কেউ নেই। তুমি টিভি ফেলতে পারো। টিভি ফেলার পর কুদ্দুস আলীর চিৎকার শুনে নিচে দৌড়ে আসি। তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে আনা হয়।

জরুরি বিভাগে দায়িত্বরত চিকিৎসক অমিয় দাস জানান, হাসপাতালে আনার আগেই ওই শ্রমিক মারা যান। নিহতের ছেলে মেহেদি হাসান জানান, তার পিতার মৃত্যুর ঘটনায় মামলা করবেন কিনা তা দাফন শেষে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।