শার্শায় গৃহবধূ গণধর্ষণ মামলায় আটক তিনজন ফের রিমান্ডে

::নিজস্ব প্রতিবেদক::

যশোর শার্শার গৃহবধূ গণধর্ষণ মামলায় আটক তিনজনের আবারও দুইদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। মঙ্গলবার রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সাইফুদ্দিন হোসাইন এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আসামিরা হলেন- শার্শার লক্ষণপুর গ্রামের মৃত আব্দুল মজিদের ছেলে আব্দুল কাদের, আব্দুল মাজেদের ছেলে আব্দুল লতিফ ও চটকাপেতা গ্রামের মৃত হামিজ উদ্দিনের ছেলে কামরুজ্জামান।
গত ৮ সেপ্টেম্বর এ আসামিদের একই মামলায় তিনদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছিল আদালত।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, ধর্ষিতা গৃহবধূর স্বামী মাদক মামলায় কারাগারে আটক আছেন। ২ সেপ্টেম্বর গভীর রাতে খাইরুল দারোগা পরিচয়ে ঘরের দরজা খুলতে বলেন। তারা ঘরে ঢুকে স্বামীর মামলা হালকা করে দেয়ার কথা বলে ওই গৃহবধূর কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন। টাকা দিতে অস্বীকার করায় তারা ওই গৃহবধূকে খাটের উপর ফেলে চোখ-মুখ বেঁধে দুইজন ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। পরদিন ওই গৃহবধূ নিজে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ডাক্তারি পরীক্ষা করতে আসলে বিষয়টি জানাজানি হয়। এরপর গৃহবধূ আটক তিনজনের নাম উল্লেখসহ অপরিচিত একজনকে আসামি করে শার্শা থানায় গণধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেন। পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ওই তিনজনকে আটক করে।

পরে প্রত্যেকের সাতদিন করে রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করলে ৮ সেপ্টেম্বর শুনানি শেষে প্রত্যেকের তিনদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালতের বিচারক। ১১ সেপ্টেম্বর রিমান্ড শেষে ওই তিনজনকে আদালতে সোপর্দ করা হয়।

১৬ সেপ্টেম্বর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আটক তিনজনের তিনদিন করে রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করেন। মঙ্গলবার আসামিদের রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে প্রত্যেক আসামির ২ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন বিচারক।