জগহাটিতে মাদক সিন্ডিকেট সক্রিয়

::বিল্লাল হোসেন::

যশোর সদর উপজেলার চুড়ামনকাটি ইউনিয়নের জগহাটিতে মাদকের শক্তিশালী সিন্ডিকেট গড়ে উঠেছে। স্থানীয়দের অভিযোগ, এলাকার বাচ্চু নামে এক যুবক সিন্ডিকেটটি নিয়ন্ত্রণ করছে। তার সহযোগী হিসেবে রয়েছে স্থানীয় নওয়াব আলী ও আনিসুর। দীর্ঘদিন ধরে তারা প্রকাশ্যে মাদকদ্রব্যের ব্যবসা করলেও পুলিশের ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে যাচ্ছে।

এলাকাবাসী জানায়, বাচ্চু ভয়ঙ্কর প্রকৃতির হওয়ায় তার মাদক সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলতে সাহস পায় না। স্থানীয় প্রভাবশালীদের পক্ষে রেখে সে দীর্ঘদিন ধরে নির্বিঘ্নে মাদকের ব্যবসা করে যাচ্ছে। জগহাটি বাঁওড়ে অবস্থান নিয়ে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত সিন্ডিকেটের সদস্যরা খুচরা ইয়াবা ও ফেনসিডিল বিক্রি করে। এছাড়া পাইকারি হিসেবেও বিভিন্ন এলাকায় সাপ্লাই দেয়া হয় মাদকদ্রব্য।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে দুইজন জানান, জগহাটি বাঁওড় পাড়ে সন্ধ্যার পর মাদকের হাট বসছে। বিভিন্ন এলাকার মাদকসেবীরা সেখানে ছুটে আসে।

স্থানীয় চুড়ামনকাটি প্রেসক্লাবের এক সদস্য জানান, বাচ্চুর সিন্ডিকেটের কাছে হাজার হাজার বোতল ফেনসিডিল ও ইয়াবা ট্যাবলেট সরবরাহ করছে চৌগাছা উপজেলার পাতিবিলা নিয়ামতপুর গ্রামের চমক আলীর ছেলে দুলাল ও সলুয়া গ্রামের মঙ্গল কসাইয়ের ছেলে ঘ্যানা টিটো। গত বৃহস্পতিবার রাতেও ৭০০ বোতল ফেনসিডিল ও কয়েকশ’ ইয়াবা ট্যাবলেট পাঠানো হয়। পরে ওই মাদকদব্য রাখা হয় জগহাটি বাঁওড়পাড়ের বাসিন্দা লাল্টুর বাড়ি।

শুক্রবার সন্ধ্যার মধ্যে তা খুচরা ও পাইকারি হিসেবে বিক্রি করে দেয়া হয় বলে তার কাছে তথ্য আছে।
এ বিষয়ে বাচ্চুর সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে মাদক সিন্ডিকেট পরিচালনার কথা মিথ্যা দাবি করে তিনি বলেন, এলাকার একটি পক্ষ তার বিরুদ্ধে অপপ্রচার রটাচ্ছে।

সাজিয়ালী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মুন্সি আনিুসর রহমান জানান, বাচ্চুর মাদক সিন্ডিকেটের বিষয়ে অবশ্যই খোঁজ নেয়া হবে। মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে কোনো আপস নেই। মাদক ব্যবসায়ীদের ধরতে বিভিন্ন গ্রামে অভিযান অব্যাহত আছে।