যশোরসহ সকল মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ আজ

  • খুলনায় আওয়ামী লীগের বিভাগীয় বর্ধিতসভা

 

::রেজওয়ান বাপ্পী::

যশোরসহ খুলনা বিভাগের আওয়ামী লীগের মেয়াদোত্তীর্ণ সকল কমিটির সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ হবে আজ মঙ্গলবার। এদিন সকাল ১১টায় খুলনার হোটেল সিটি ইন-এ এক বর্ধিতসভায় খুলনা মহানগর ও বিভাগের ১০ জেলার এবং সকল উপজেলা, ইউনিয়নের তারিখ নির্ধারণ করা হবে বলে জানা গেছে।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য পীযুষ কান্তি ভট্টাচার্য্য। বিশেষ অতিথি থাকবেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক ও জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুন্নুজান সুফিয়ান, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, সদস্য এসএম কামাল হোসেন।

উপস্থিত থাকবেন খুলনা বিভাগের আওয়ামী লীগের সকল সংসদ সদস্য, খুলনা মহানগর ও বিভাগের ১০ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকবৃন্দ।

যশোর-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মনিরুল ইসলাম মনির এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

প্রসঙ্গত, গত ১২ মে জেলা পরিষদ মিলনায়তনে জেলা আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিতসভায় ২৬ সেপ্টেম্বর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করেন কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। কিন্তু এদিন সম্মেলন হয়নি। কারণ হিসেবে জানা যায়, আগস্ট মাসব্যাপী শোক পালনে সম্মেলনের প্রস্তুতি সম্ভব না হওয়া, সারা দেশে ডেঙ্গু পরিস্থিতির ভয়াবহতা, দেশের বিভিন্ন স্থানে বন্যা মোকাবেলায় এ সম্মেলন করা সম্ভব হয়নি।

উল্লেখ্য, আগামী ২০ ও ২১ ডিসেম্বর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে। কেন্দ্রীয় সম্মেলনকে সামনে রেখে গত ১৫ সেপ্টেম্বর কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের পক্ষে দলের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের পাঠানো এক পত্রে আগামী ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে আওয়ামী লীগের সব সাংগঠনিক জেলা, মহানগর, উপজেলা, থানা, পৌর, ইউনিয়নের মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির সম্মেলন শেষ করার নির্দেশ দেয়া হয়।

এরই ফলপ্রসুতে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নির্দেশনায় খুলনায় বিভাগীয় এ বিশেষ বর্ধিতসভার আয়োজন করা হয়েছে।

যশোর জেলা আওয়ামী লীগের দলীয় সূত্রে জানা যায়, যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে হয়েছে ২০১৫ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি। সম্মেলনে শহিদুল ইসলাম মিলনকে সভাপতি ও শাহীন চাকলাদারকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি ঘোষণা করা হয়। পরবর্তীতে পূর্ণাঙ্গ কমিটি হয়েছে। প্রায় পাঁচবছর পার হয়েছে এ কমিটি।

জেলার ৮ উপজেলা কমিটির কোনোটিই পূর্ণাঙ্গ নয়। আংশিক ও আহ্বায়ক কমিটিতে চলছে উপজেলা আওয়ামী লীগ। যশোর সদর ও শহর উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি প্রায় এক যুগের বেশি সময় ধরে মেয়াদ উত্তীর্ণ। শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি ঘোষণা করা হয় ২০১৩ সালের ১৯ জানুয়ারি। ছয় বছর পার হলেও কমিটি পূর্ণাঙ্গ হয়নি। চৌগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের প্রায় সাড়ে তিন বছর পর ২০১৮ সালের ১০ মার্চ আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। এতে সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের পদ দেয়া হয়।

২০১৪ সালের ২৮ নভেম্বর মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। বর্তমান কমিটি আংশিক। বাঘারপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটিও এক যুগেরও বেশি সময় ধরে মেয়াদ উত্তীর্ণ।

২০১৮ সালের ১০ মার্চ অভয়নগরে আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। সেই কমিটিতেই চলছে কার্যক্রম। ঝিকরগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ। আংশিক কমিটিতে চলছে কার্যক্রম। কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি ঘোষণা হয় ২০১৪ সালে। এ কমিটিরও মেয়াদ উত্তীর্ণ। অধিকাংশ পৌর, ইউনিয়ন এমনকি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কমিটিরও মেয়াদ শেষ। নানা কারণে সম্মেলন কিংবা পূর্ণাঙ্গ কমিটি হয়নি।