গাবগাছে গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ

প্রতীকী ছবি

::ঝিনাইদহ প্রতিনিধি::

ঝিনাইদহ সদর উপজেলার পাগলাকানাই ইউনিয়নের গয়াসপুর গ্রামে গাবগাছে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। নিহত চম্পা খাতুন (২২) ওই গ্রামের হানেফ মন্ডলের মেয়ে।

বাবা হানেফ মন্ডলের দাবি, স্বামী ও দেবরের নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে বাড়ির পাশের একটি পুকুর পাড়ের গাবগাছের সাথে গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করেছে চম্পা।

জানা যায়, প্রায় চারবছর পূর্বে ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার জমিদারপাড়া গ্রামের আকবার মন্ডলের ছেলে ইকবালের সাথে চম্পা খাতুনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর সামিয়া (২) নামের এক কন্যা সন্তানের জন্ম হয়।

চম্পার বাবা হানেফ মন্ডল বলেন, আমার মেয়েকে ফুঁসলিয়ে বিয়ে করে ড্রাইভার আমিরুল। এ দিয়ে আমিরুলের তিন বউ। বড় বউয়ের দুই মেয়ে। আমিরুলের বড় বউ দেশের বাইরে থাকে। তার বাবার বাড়ি পার্শ্ববর্তী লক্ষিকোল গ্রামে। মেজো বউয়ের ১ মেয়ে। তার বাবার বাড়ি কাষ্টসাগরা গ্রামে। এ অবস্থায় আমার মেয়ের আগের স্বামীর কাছ থেকে ফুঁসলিয়ে নিয়ে বিয়ে করে ৫ মাস আগে।

তিনি জানান, আমিরুল ও তার ছোট ভাই কামরুল মাদকাসক্ত। তারা দুজনে মিলে আমার মেয়েকে প্রায়ই নির্যাতন করতো। এখন নাতনি সামিয়ার কি হবে? আমি এ ঘটনার বিচার চাই।

এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ সদর থানার এসআই ইউনুচ আলী গাজী জানান, সদর উপজেলার গয়াসপুর গ্রামে চম্পা নামের এক গৃহবধূর লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এ ঘটনায় থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে। ময়না তদন্ত রিপোর্টের পর বিস্তারিত জানা যাবে।