মহেশপুরের ৪৩টি মণ্ডপে চলছে তুলির আঁচড়

::নিজস্ব প্রতিবেদক, মহেশপুর::

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদেরসবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজাকে সামনে রেখে ঝিনাইদহ মহেশপুরের মণ্ডপ গুলোতে প্রতিমা তৈরির কাজ প্রায় শেষ প্রান্তে। এখন চলছে রং তুলির কাজ। সেই সাথে চলছে প্যাণ্ডেলের কাজও।

অন্যদিকে উৎসব নির্বিঘ্ন করতে জেলার পুলিশ প্রশাসন সব ধরণের প্রস্তুতি নিয়েছে। আগামী শুক্রবার ষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে শারদীয় দুর্গোৎসব শুরু হবে।

এবার মহেশপুর উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা এলাকায় ৪৩টি মণ্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হবে।

পূজা উৎসবকে পরিপূর্ণ রূপ দিতে মন্দিরগুলোতে চলছে ব্যাপক সাজসজ্জা। একেকজন কারিগর পাঁচ থেকে ছয়টি করে মন্দিরের প্রতিমা তৈরি করছেন। মন্দির ভেদে তারা ২০ হাজার টাকা থেকে ৪০-৫০ হাজার টাকা পারিশ্রমিক নিয়ে থাকেন। প্রতিমা তৈরির অন্যান্য উপাদান, মাটি, বাঁশ সরবরাহ করে মন্দির কর্তৃপক্ষ। ফলে লাভের অংকটা বেশ সন্তোষজনক বলে জানিয়েছেন প্রতিমা শিল্পীরা।

মহেশপুর উপজেলার ৪৩টি মণ্ডপের মধ্যে রয়েছে মহেশপুর শ্রীপাট মন্দির, শিববাড়ী দুর্গা মন্দির,দোল মন্দির, বারুইপাড়া মন্দির, হামিদপুর পাড়া মন্দির, গোপালপুর দাসপাড়া মন্দির,সাহেবদাড়ী মন্দির,বোয়ালীয়া দাসপাড়া মন্দির, বৈঁচিতলা হালদারপাড়া মন্দির, বেগমপুর মন্দির, কৌলাশপুর মন্দির, রামচন্দ্রপুর মন্দির, কাশিপুর মন্দির,বেদেরগাড়ী মন্দির,বজরাপুর মন্দির, খালিশপুর মন্দির (১), খালিশপুর মন্দির (২), গোয়ালহুদা আদিবাসী মন্দিরসহ ৪৩টি মন্দির।

মহেশপুর উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি রঞ্জন কুমার মজুমদার জানান, সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে এখন চলছে প্যান্ডেল সজ্জার কাজ।