সাত বছর পর বেনাপোল দিয়ে ইলিশের চালান ভারতে

::নিজস্ব প্রতিবেদক::

দুর্গাপূজা উপলক্ষে শুভেচ্ছা হিসেবে সোমবার রাতে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ইলিশের প্রথম চালান রফতানি হয়েছে ভারতে। আটটি ট্রাকে করে ৩০ দশমিক ৫৬০টন ইলিশের চালান বেনাপোল বন্দরে এসে পৌঁছালে কাস্টমস কর্মকর্তারা আনুষ্ঠানিকতা শেষে রফতানির অনুমতি প্রদান করেন। পর্যায়ক্রমে ১০ অক্টোবরের মধ্যে বাকি ইলিশ ভারতে যাবে।

রোববার প্রথম চালানের ইলিশ মাছ ভারতে রফতানির কথা থাকলেও কাগজপত্র ও মাছের ট্রাক না আসায় রফতানি হয়নি। ভারতে মাছ রফতানির জন্য সিএন্ডএফ এজেন্ট এমি এন্টারপ্রাইজ সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে বেনাপোল কাস্টম হাউজে ৩টি বিল অব এন্ট্রি দাখিল করেন। যার নম্বর সি-৬৩৮০৮, সি-৬৩৮০৯ ও সি-৬৩৮৪৭। প্রতিকেজি ইলিশের মূল্য ধরা হয়েছে ৬ মার্কিন ডলার। যা বাংলাদেশি টাকায় ৫০৭ টাকা।

বাংলাদেশের রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান একোয়াটিক রিসোর্স লিমিটেড ঢাকা ও ভারতের আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান নাজ ইমপেক্স ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেড কোলকাতা।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব জাফর উদ্দিন জানান, ৭ বছর পর বাংলাদেশের পক্ষ থেকে পশ্চিমবঙ্গের কোলকাতাকে শুভেচ্ছা হিসেবে ভারতে ৫০০ মেট্রিক টন ইলিশ পাঠানোর অনুমোদন দেয় সরকার।
সিএন্ডএফ এজেন্ট এমি এন্টারপ্রাইজের মালিক মহিতুল হক জানান, বেনাপোল দিয়ে ৫০০ মেট্রিক টন ইলিশ পাঠানো হবে। সোমবার প্রথম চালানের (৩০.৫৬০ মেট্রিক টনের) প্রয়োজনীয় কাগজপত্র কাস্টম হাউজে দাখিল শেষে ইলিশের চালান ভারতে পাঠানো হয়েছে। মূলত কোলকাতার বাজারেই এই ইলিশ বিক্রি হবে।

২০১২ সালের পর থেকে ভারতে ইলিশ রফতানি বন্ধ করে দেয় বাংলাদেশ। এরপর থেকে বৈধভাবে বাংলাদেশের ইলিশ আর কোলকাতায় যায়নি। ভারত ও বাংলাদেশ দুই দেশের কাস্টমস থেকে শুল্কমুক্ত সুবিধায় ইলিশের এ চালান ছাড় করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

কোলকাতায় ইলিশ ইমপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আনোয়ার মকসুদ বলেন, ২০১২ সালে বাংলাদেশ সরকার ভারতে ইলিশ রফতানি বন্ধ করে দেয়। এবার বাংলাদেশ সরকার পশ্চিমবঙ্গে ৫০০ টন ইলিশ রফতানির অনুমতি দিয়েছে শুভেচ্ছা হিসেবে। প্রথম চালান সোমবার ভারতে গেছে। বাংলাদেশের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ছাড়পত্র দেয় ২২ সেপ্টেম্বর। এই ইলিশ কয়েক ধাপে আগামী ১০ অক্টোবরের মধ্যে পৌঁছাবে পশ্চিমবঙ্গে। বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে ইলিশ যাচ্ছে কোলকাতায়। এরপর ইলিশ চলে যাবে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন বাজারে।

এ বছর পশ্চিমবঙ্গে তেমন ইলিশ ধরা পড়েনি। গত বছর যে ইলিশ ২০০ রুপি কেজিতে বিক্রি হয়েছিল, এবার সেই ইলিশ ৫০০ রুপিতে বিক্রি হচ্ছে।

বেনাপোল কাস্টম হাউজের সহকারী কমিশনার উত্তম চাকমা বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, সোমবার রাতে প্রথম চালানের ৩০.৫৬০ মেট্রিক টন ইলিশ মাছ ভারতে রপ্তানি হয়েছে। কাস্টম হাউজে কাগজপত্র দাখিল করার সাথে সাথে দ্রুততার সাথে ইলিশ মাছের চালানটি ভারতে পাঠানোর ব্যবস্থা নেয়া হয়।