যশোর স্টেডিয়ামপাড়ার সন্ত্রাসী চক্রের বিরুদ্ধে স্মারকলিপি

✍ নিজস্ব প্রতিবেদক

যশোর শহরের স্টেডিয়ামপাড়ার সন্ত্রাসী চক্রের চাঁদাবাজিতে অতিষ্ঠ হয়ে পুলিশ সুপার বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে এলাকাবাসী। শনিবার দুপুরে শতাধিক এলাকাবাসী পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে গিয়ে এ স্মারকলিপি প্রদান করেন।

স্মারকলিপি গ্রহণ করে সন্ত্রাসী চক্রের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছেন যশোরের পুলিশ সুপার মঈনুল হক।

স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে, ২০১৪ সালের ১৯ আগস্ট বৃহত্তর স্টেডিয়ামপাড়ায় শান্তিশৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময়সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় এলাকাবাসীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে তৎকালীন পুলিশ সুপার সন্ত্রাসী চক্রের হোতা দুই ভাই মামুন ও মিলনকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন। এরপর থেকে তারা পলাতক ছিল।

সম্প্রতি মামুন-মিলন এলাকায় ফিরে এসে ফের সন্ত্রাসী বাহিনীকে চাঙ্গা করে চাঁদাবাজি, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ও মাদক ব্যবসা শুরু করেছে। এরই মধ্যে তারা স্টেডিয়ামপাড়া মসজিদ সংলগ্ন ৮ শিক্ষকের কাছে ৪ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে তাদের বাড়ির রাস্তা নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দিয়েছে।

স্টেডিয়ামপাড়ার মহাতাপ উদ্দিনের কাছ থেকে ২০ হাজার ও রেজাউল মহুরির কাছ থেকে ২৫ হাজার টাকা চাঁদা নিয়েছে। এলাকার মৎস্য ব্যবসায়ী ফেরদৌস আহম্মেদ বাবুর কাছে ২ লাখ টাকা, আসাদ হলের পাশে রাস্তা নির্মাণের ঠিকাদার রেজাউল ইসলামের কাছে ৩০ হাজার, বই বিক্রেতা রাজুর কাছে ৮ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে।

চাঁদার দাবিতে ব্যবসায়ী আতিয়ারকে ছুরিকাঘাত, ব্যবসায়ী মাছুমকে পিস্তল নিয়ে তাড়া করা ও স্টেডিয়ামের নৈশপ্রহরী খোকনের মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে চাঁদা দাবি করেছে। এছাড়াও চাঁদাবাজির এমন ২১টি ঘটনা স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

এলাকাবাসীর পক্ষে স্মারকলিপি প্রদানকালে প্রফেসর মোহাম্মদ আলা উদ্দিন, মোস্তফা হোসেন, হায়াতুজ্জামান, ফিরোজ আহমেদ, মাহবুবুর রহমান, ইবাদুল ইসলাম, আব্দুর রহিম মোড়লসহ শতাধিক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।