নিয়ন্ত্রণহীন গড়াই, কালীগঞ্জে ফের আহত ৫

✍ কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে বেপরোয়া গড়াই পরিবহন একটি মোটরগ্যারেজে আঘাতের ঘটনায় পাঁচজন আহত হয়েছেন। রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রাককে সাইড দিতে গিয়ে দ্রুত গতির পরিবহনটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশের মোটর গ্যারেজে আঘাত করলে এ ঘটনা ঘটে।

সোমবার বিকেল ৩টার দিকে খুলনা-কুষ্টিয়া মহাসড়কের শহরের বৈশাখী তেল পাম্প মোড়ের এ ঘটনায় আহতদেরকে কালীগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহতদের মধ্যে বাসচালক গঞ্জের আলীর অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী তরুণ মিয়া ও কালীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা মামুনুর রশিদ জানান, কালীগঞ্জ শহরের বৈশাখী তেল পাম্পের মোড়ে সড়কের পাশে একটি ট্রাক দাঁড়ানো ছিল। এ সময় খুলনা থেকে ছেড়ে আসা বেপরোয়া গতির গড়াই পরিবহন (রাজ মেট্রো-ব-১১-০০৩৮) ট্রাকটিকে সাইড দিতে গেলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশের একটি মোটরগ্যারেজে সজোরে ধাক্কা দেয়।

এ সময় গ্যারেজ শ্রমিক উপজেলার মল্লিকপুর গ্রামের আলমগীর হোসেনের ছেলে মানিকুর রহমান (২৭), বাসচালক জেলার সদর উপজেলার কোলা গ্রামের তাজ মন্ডলের ছেলে গঞ্জের আলীসহ (৪৩) পাঁচজন গুরুতর আহত হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্য, এ সড়কের গড়াই পরিবহনের সকল বাসই বেপরোয়া গতিতে চলাচল করে। যে কারণে প্রায়ই ঘটে দুর্ঘটনা।

কালীগঞ্জ শহরের নিমতলা বাসস্ট্যান্ডের হোটেল শ্রমিক এমামুল হক জানান, গত ৩ দিন আগে কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের প্রধান ফটকের সামনে একইভাবে কালীগঞ্জের দিকে আসা দ্রুত গতির একটি গড়াই গাড়ি ধাক্কা দেয়। এতে ভ্যানের ৩ যাত্রী মারাত্মক আহত হয়। তাদের মধ্যে একজনকে ঢাকা পঙ্গুতে পাঠাতে হয়েছে।

আসলাম হোসেন নামে একজন অভিযোগ করে বলেন, খুলনা-কুষ্টিয়া মহাসড়কে চলাচলরত গড়াই গাড়ি যাত্রী নিয়ে বেপরোয়া গতিতে চলাচল করে।

সচেতন মহলের বক্তব্য, যাত্রীবাহী এ বাসগুলো টার্মিনালে অনেক সময় ব্যয় করে সড়কে চলাচল করে। সকল স্টপিজে অযথা সময় নষ্ট করে পরে সময়মত পৌঁছাতে বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালায়। এজন্য অহরহ দুর্ঘটনায় পড়ে প্রাণহানীর ঘটনা ঘটছে। এমনকি এ সকল গাড়িতে থাকা যাত্রীরা গতির কারণে ভয়ের মধ্যে যাতায়াত করেন।