জামায়াত-বিএনপি শাসনামলে হিন্দুরা ছিলো সবচেয়ে নির্যাতিত…………..শেখ আফিল উদ্দিন এমপি

শেখ কাজিম উদ্দিন, বেনাপোল : যশোর-১ (শার্শা) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ শেখ আফিল উদ্দিন বলেছেন, সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দুর্গা পূজা। তারা বিশ্বাস করেন বছর ঘুরে দেবী দুর্গা আবার আসেন পৃথিবীর বিরাজমান সকল দুর্গকে নাশ করতে। জগতের শান্তি প্রতিষ্ঠা করে ফিরে যান তাঁর স্থানে। তাই, সকল সনাতন ধর্মাবলম্বীদের আরাধনায় যেনো জননেত্রী শেখ হাসিনা দীর্ঘ জীবন লাভ করেন। সেই সাথে সকল অপশক্তিকে রুখে দিয়ে তিনি যেনো দেশের চলমান উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে পারে। মঙ্গলবার বেলা ৩টা থেকে শার্শা উপজেলার উত্তর এলাকার বড় মান্দারতলাসহ ৪টি শারদীয় দুর্গাপূজার মণ্ডপ পরিদর্শনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন তিনি। এ সময় তিনি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সাথে কুশল বিনিময় ও সার্বজনীন শারদীয় দুর্গোৎসবের আনন্দ ভাগাভাগি করেন।
শার্শা উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বৈদ্যনাথ দাসের সভাপতিত্বে শারদীয় দুর্গা পূজার মঞ্চে শেখ আফিল উদ্দিন এমপি আরো বলেন, জামায়াত-বিএনপির শাসনামলে হিন্দুরা ছিলো সবচেয়ে নির্যাতিত। তারা ভাবত: শাখা সিঁদুর আর ধুতি পরারা কখনো জামায়াত-বিএনপিতে ভোট দেবে না। ওরা নৌকার লোক। তাই, নির্বাচনের সময় হিন্দুদের ভোট কেন্দ্রে যেতে দেওয়া হতো না। প্রতিটি পদে পদে তারা হিন্দুদের উপর রোলার চালাতো। এদেশে হিন্দুরা ভালো থাকুক তা তারা কখনো চাইনি। তাই, এখনি সময় ওদেরকে উচিত জবাব দেয়ার। বঙ্গবন্ধুর নৌকার হাল ধরেছেন তাঁর কন্যা শেখ হাসিনা। তিনি শক্ত হাতে দেশের সকল অপশক্তিকে দমন করে বাংলাদেশকে একটি সোনার দেশে পরিণত করছেন। এদেশের কোনো মানুষ এখন আর না খেয়ে দিনাতিপাত করে না। গ্রামগঞ্জের মানুষ পর্যন্ত পাকা রাস্তাসহ উন্নত স্বাস্থ্যসেবা ও শহরের সকল সুযোগ সুবিধা ভোগ করছেন। আমরা এখন উন্নয়নের মহাসড়কে। তাই, সনাতন ধর্মাবলম্বীদের এখনি এগিয়ে এসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। আপনাদেরকে যোগ্য হিসেবে গড়ে তুলে রাজনীতিতে প্রতিষ্ঠিত হতে হবে। দেশের সকল প্রশাসনিক দপ্তরের কর্মকর্তা হতে হবে। তাহলে অচিরেই আমরা উন্নত দেশের বাসিন্দা হতে পারব।
এসময় তিনি আরো বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একটি অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র গঠনে এদেশের সকল ধর্ম বর্ণ মানুষের সাথে নিয়ে বাংলাদেশকে স্বাধীন করেছিলেন। যে কারণে আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় থাকলে সকল ধর্মের মানুষ ভালো থাকে।
এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ নুরুজ্জামান, যুগ্ম সম্পাদক ও যশোর জেলা পরিষদের সদস্য অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল, শার্শা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আতাউর রহমান, যশোর জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আসিফ-উদ-দৌলা অলোক, উপজেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ আলহাজ ওয়াহিদুজ্জামান, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান, যুবলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য অহিদুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক ও শার্শা সদর ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম সরদার, শার্শা উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নীল কমল সিংহসহ উপজেলা ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের সকল সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।