ভোলায় সংঘর্ষ : দায়ী পুলিশদের বিচার চায় হেফাজত

নিজস্ব প্রতিবেদক : ভোলায় হিন্দু তরুণের ফেইসবুক আইডি হ্যাক করে ‘অবমাননাকর’ বক্তব্য ছড়ানোর পর সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনার প্রতিবাদে বায়তুল মোকাররমে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে হেফাজতে ইসলাম ঢাকা মহানগর শাখা।

মঙ্গলবার দুপুর থেকে বায়তুল মোকাররমের উত্তর ফটকে জড়ো হতে শুরু করেন হেফাজত ইসলামের নেতাকর্মীরা।

প্রায় দুই ঘণ্টাব্যাপী চলা প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা ভোলার ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত এবং দায়ী পুলিশ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানান।

হেফাজতে ইসলাম ঢাকা মহানগর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুফতী ফয়জুল্লাহ বলেন, সুষ্ঠু তদন্ত ছাড়াও এ ধরনের কটূক্তিকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান রেখে সংসদে আইন পাস করতে হবে।

পল্টন থানার ওসি আবু বকর সিদ্দিক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “শান্তিপূর্ণভাবে তারা উত্তর ফটকে সমাবেশ করেছে।”

হেফাজতের সমাবেশের সময় দৈনিক বাংলা থেকে পল্টন মোড় পর্যন্ত সড়কের দক্ষিণাংশ দিয়ে কোনো যান চলাচল করেনি।

বিপ্লব চন্দ্র বৈদ্য শুভ নামের এক যুবক শুক্রবার রাতে বোরহানউদ্দিন থানায় গিয়ে একটি জিডি করেন। সেখানে তিনি তার ফেইসবুক আইডি হ্যাকারের কবলে পড়ার কথা জানান।

শুভর মেসেঞ্জারে ‘নবীকে নিয়ে অবমাননাকর বক্তব্য’ ছড়িয়ে সেই ‘স্ক্রিনশট’ ব্যবহার করে গত শুক্রবার থেকে বোরহানউদ্দিনে উত্তেজেনা সৃষ্টি করা হয়।

এরপর শুভর বিচারের দাবিতে রোববার বোরহানউদ্দিন ঈদগাহ ময়দানে ‘মুসলিম তৌহিদি জনতা’র ব্যানারে বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে পুলিশের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে।

রোববার বেলা পৌনে ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত উপজেলা সদরে দফায় দফায় সংঘর্ষে চারজন নিহত হন, আহত হন ১০ পুলিশ সদস্যসহ শতাধিক।