প্রত্যাশামতো না হলেও জাতীয় লিগে বাড়ল ম্যাচ ফি

ক্রীড়া প্রতিবেদক : ক্রিকেটারদের আন্দোলন ও ধর্মঘটের প্রথম ইতিবাচক প্রতিফলন পড়ল জাতীয় লিগে। দাবি যত ছিল, ততটা না হলেও বাড়ানো হয়েছে ক্রিকেটারদের ম্যাচ ফি। সেই সঙ্গে বেড়েছে দাবি অনুযায়ী আবাসন, যাতায়াতসহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধাও।

ঘরোয়া প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ম্যাচ ফি অন্তত ১ লাখ টাকা করার দাবি ছিল। চাওয়ার কাছাকাছি এখনও হয়নি এই অঙ্ক। তবে বেড়েছে উল্লেখযোগ্য হারে। জাতীয় লিগের প্রথম স্তরে ম্যাচ ফি করা হয়েছে ৬০ হাজার টাকা। আগে এটি ছিল ৩৫ হাজার টাকা। দ্বিতীয় স্তরে ম্যাচ ফি ২৫ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে করা হয়েছে ৫০ হাজার টাকা।

এবার জাতীয় লিগের দ্বিতীয় রাউন্ড শেষে শুরু হয়েছিল ক্রিকেটারদের আন্দোলন। এখন চলছে তৃতীয় রাউন্ড। তবে বর্ধিত এই ম্যাচ ফি কার্যকর ধরা হবে প্রথম রাউন্ড থেকেই।

ক্রিকেটারদের দাবি ছিল দৈনিক ভাতা উপযুক্ত পর্যায়ে বাড়ানো, যেন ফিটনেস সহায়ক খাবার খাওয়াসহ অনান্য চাহিদা তারা মেটাতে পারেন। ১৫০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে দৈনিক ভাতা এখন করা হয়েছে ২ হাজার ৫০০ টাকা।

ভ্রমণ ভাতা আগে ছিল ২ হাজার ৫০০ টাকা। সেই টাকায় বিমানে ভ্রমণ ছিল অসম্ভব। ক্রিকেটারদের চাওয়া ছিল, ভাতা না দিয়ে বিমান টিকিটের ব্যবস্থা করে দেওয়া। তৃতীয় রাউন্ড থেকেই এটি শুরু হয়ে গেছে। সামনেও বিমানেই যাতায়াতের ব্যবস্থা করা হবে ক্রিকেটারদের। যেসব জায়গায় বিমানে যাওয়ার ব্যবস্থা নেই, সেখানে ভ্রমণ ভাতা ধরা হয়েছে ৩ হাজার ৫০০ টাকা।

এছাড়াও ক্রিকেটারদের দাবি ছিল, এমন হোটেলে যেন তাদের রাখা হয়, যেখানে ফিটনেস ধরে রাখার জন্য জিম ও সুইমিংপুল থাকবে। আবাসন ফি এখন বাড়ানো হয়েছে আগের চেয়ে ৮০ শতাংশ। টাকার অঙ্ক অবশ্য জানানো হয়নি। ম্যাচ চলাকালীন খাওয়ার মান উন্নত করার জন্য ক্যাটেরিং ফি বাড়ানো হয়েছে ৮৫ শতাংশ।

জাতীয় লিগের ম্যাচে হোটেল থেকে মাঠে যাওয়ার বাস খুবই নিম্নমানের বলে অভিযোগ ছিল ক্রিকেটারদের। এখন সেখানে এসি বাস রাখার ব্যবস্থা করা হবে।