প্রাথমিকে শূন্য পদের তথ্য চেয়ে শিক্ষা অধিদপ্তরের নির্দেশ

স্পন্দন ডেস্ক : দেশব্যাপ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শূন্য পদের সকল তথ্য চেয়ে নির্দেশনা দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। সোমবার (২৮ অক্টোবর) এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ নির্দেশনা দেয়া হয়।

প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ৩৩ জুন ২০১৯ তারিখ পর্যন্ত সহকারি শিক্ষক শুন্যপদের উপজেলা/থানাওয়ারী তথ্য (প্রাক প্রাথমিক ও ১৫০০ বিদ্যালয় স্থাপন প্রকল্পের আওতায় সৃষ্ট বিদ্যালয়ের শুন্যপদ হিসাবে আনতে হবে এবং চলতি দায়িত্ব প্রদান জনিত শূন্য পদ আলাদা কলামে দেখাতে হবে) আগাহী ৩১ অক্টোবরের মধ্যে মাইক্রোসফট এক্সেল ফরমেটে ইমেইল প্রেরণ করার জন্য বিশেষ অনুরোধ করা হলো।

উল্লেখ্য সারাদেশে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষক নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। জানা গেছে এ ধাপে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাক-প্রাথমিক পর্যায়ে ২৬ হাজার ৩৬৬ জন শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে। প্রতিটি স্কুলে একজন করে শিক্ষক নেয়া হবে।

চলতি বছর নভেম্বরে এই শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করার কথা। এই নিয়োগ কার্যক্রম থেকেই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে নারী-পুরুষ উভয়ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা নূনতম স্নাতক বা ডিগ্রি পাস বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে।

গত মাসে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (বিদ্যালয়) মো. বদরুল হাসান বাবুল গণমাধ্যমকে বলেছিলেন, প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ কার্যক্রম শেষে নভেম্বরে প্রাক-প্রাথমিক পর্যায়ে ২৬ হাজারের বেশি শিক্ষক নিয়োগ কার্যক্রম শুরু হবে। নভেম্বরের মাঝামাঝি এ নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।

তিনি বলেন, দেশের ৬৫ হাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। সেই আলোকে প্রথম ধাপে ২৬ হাজার ৩৬৬ জন শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, এই নিয়োগ প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে পদ সৃজনের প্রস্তাব জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে সচিব কমিটিতে পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে অনুমোদন হওয়ার পর তা মন্ত্রিপরিষদ সভায় পাঠানো হবে। অনুমোদন সংক্রান্ত কার্যক্রম অক্টোবরের মধ্যে শেষ হবে। নভেম্বরে ২৬ হাজার শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।