যশোরে শুরু হলো বাফুফে-ইউনিসেফ অনূর্ধ্ব-১৬, আবাসিক বালিকা ফুটবল প্রশিক্ষণ শিবির

ক্রীড়া প্রতিবেদক:
বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের আয়োজনে ও ইউনিসেফের সহায়তায় যশোরে শনিবার থেকে শুরু হয়েছে বাফুফে-ইউনিসেফ অনূর্ধ্ব-১৬ (আবাসিক) বালিকা ফুটবল প্রশিক্ষণ শিবির। স্থানীয় শামস-উল-হুদা স্টেডিয়ামে দু’মাসব্যাপী অনুষ্ঠিত হবে এ প্রশিক্ষণ। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন দ্বিতীয়বারের মতো এ আয়োজন করলো। প্রশিক্ষণ উপলক্ষে স্টেডিয়ামের আমেনা খাতুন প্যাভিলিয়নে গতকাল শনিবার বিকেলে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এসময় বক্তব্য রাখেন পুলিশের অসরপ্রাপ্ত আইজিপি আবদুর রউফ, যশোরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আরিফ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তৌহিদুল ইসলাম, ইউনিসেফের প্রতিনিধি ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী ও ফিফা কাউন্সিলের সদস্য মাহফুজা আক্তার কিরণ। সভাপতিত্ব করেন জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের সভাপতি আসাদুজামান মিঠু। পরে প্রশিক্ষণের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সহসভাপতি ও যশোর সদর আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ। তিনি এসময় বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত ক্রীড়াবান্ধব। দেশের ক্রীড়াঙ্গনকে এগিয়ে নিতে কাজ করছে এ সরকার। এরই মধ্যে প্রমীলা ফুটবলে বাংলাদেশ সাফল্য পেতে শুরু করেছে। প্রশিক্ষণের মাধ্যমে এসব খেলোয়াড়রা আগামীতে জাতীয় দলে নেতৃত্ব দেবে বলে আশা করছি। সর্বোপরি যশোরের জন্য গর্বের এ আয়োজন হওয়াটা।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ৮৩ জন মেয়ে অংশ নিচ্ছে এ ক্যাম্পে। ৪১ টি জেলায় লিগ করে ১৯ টি জেলার মেয়েরা সুযোগ পেয়েছেন দু’মাসের এ প্রশিক্ষণে। এর মধ্যে যশোরের ৬ জন মেয়ে আছেন। গতকাল উদ্বোধনী দিনে ৫৩ জন প্রশিক্ষণার্থী রিপোর্টিং করেছেন। আয়োজকরা বলেন জেএসসি পরীক্ষা থাকায় অন্যরা অনুপস্থিত ছিল। তবে আশা করছি দ্রুত তারাও ক্যাম্পে যোগ দেবেন। পরবর্তীতে এ ৮৩ জনের মধ্য থেকে ২৫/৩০ জনকে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের তত্ত্বাবধানে আরও উন্নত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে। যারা পরবর্তীতে জাতীয় দলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করবেন। স্টেডিয়ামের আমেনা খাতুন প্যাভিলিয়নের তৃতীয় তলায় মেয়েদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে এবং সুষম খাদ্যের ব্যবস্থা থাকবে তাদের জন্য। দু’মাসের এ প্রশিক্ষণে সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন আয়োজকরা। ক্যাম্পে প্রধান প্রশিক্ষকের দায়িত্বে থাকছেন বাংলাদেশ প্রমীলা ফুটবল দলের কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন। সহকারী প্রশিক্ষকের দায়িত্ব পালন করবেন মাহবুবুর রহমান লিটু, সাইনুপ্রু মারমা ও মাহমুদুর রহমান সুজন।