চুড়ামনকাটিতে গোসলের ভিডিও ভাইরালের হুমকিতে ধর্ষণ, ২ হাজার টাকায় মীমাংসার চেষ্টা

বিল্লাল হোসেন:
যশোর সদর উপজেলার চুড়ামনকাটিতে গোসলের ভিডিও ইন্টারনেটে ভাইরালের হুমকি দিয়ে যুবতীকে তিন বছরে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে হিটু নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে। ওই যুবতী বিয়ের দাবিতে ধর্ষকের বাড়িতে অবস্থান করলেও শেষ পর্যন্ত ঠাঁই হয়নি। এখন ঘটনা ধামাচাপা দিতে ধর্ষকের পরিবার স্থানীয় প্রভাবশালীদের কাছে ছুটছে। এই সুযোগে প্রভাবশালীরা মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়ে ধর্ষিতার এক আত্মীয়ের হাতে ২ হাজার টাকা ধরিয়ে দিয়ে সাদা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করে নিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। যুবতী জানিয়েছেন, ঘটনাটি নিয়ে তাদের বাড়াবাড়ি না করার জন্য হুমকি দেয়া হচ্ছে।
ওই যুবতী জানিয়েছেন, তার বাড়ি ফরিদপুর সদর উপজেলার চন্ডিপুর গ্রামে। ছোট বেলা থেকে তিনি খালা খালুর সাথে বসবাস করেন। তিন বছর আগে তারা চুড়ামনকাটি গ্রামের দক্ষিণ পাড়ায় এক বাড়িতে ভাড়া আসেন। আসার কয়েক মাস পরেই আবু বক্কারের ছোট ছেলে হিটু তাকে ডেকে বলে তোমার গোসলের দৃশ্য মুঠোফোনে ধারণ করেছি। আমার কথা না শুনলে ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়া হবে। পরে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করেছে। তার অত্যাচারে বাসা পরিবর্তন করেও রক্ষা হয়নি। পরে ভাড়া নেয়া বাসায় গিয়েও তার সাথে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হতে বাধ্য করেছে। ওই যুবতী আরো জানান, সতিত্ব হারিয়ে তিনি গত বৃহস্পতিবার তিনি হিটুর বাড়িতে বিয়ের দাবিতে অবস্থান করে। কিন্তু একটি মহলের কারণে শেষ পর্যন্ত সেখানে থাকতে পারেননি। প্রভাবশালীরা ধর্ষকের পক্ষে অবস্থান নিয়ে তাকে ওই বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দিয়েছে। এখন হুমকি দিচ্ছে ঘটনা নিয়ে বাড়াবাড়ি না করার। এখন মামলা করতে যাওয়াতো দুরের কথা ভয়ে তিনি বাড়ি থেকেই বের হতে পারছেন না। ওই যুবতীর খালু জানান, স্থানীয় এক মাতব্বর বুধবার সকালে তাকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়। পরে জোরপূর্বক দুই হাজার টাকা হাতে গুজে দিয়ে সাদা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করে নিয়েছে। ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর চুড়ামনকাটিতে ব্যাপক তোলপাড় চলছে। সাধারণ মানুষ ধর্ষিতার পক্ষে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন। এই বিষয়ে হিটু দাবি করেছেন, গোসলের দৃশ্য ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে ওই যুবতীকে ধর্ষণ করা হয়নি। তার সাথে দীর্ঘদিন প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। অন্য মেয়েকে বিয়ে করতে যাচ্ছি এই খবরে গত বৃহস্পতিবার ওই যুবতী বাড়িতে অবস্থান নেন। এ সময় তাকে বিয়ে করার দাবি করেন। পরে স্থানীয় মাতব্বরদের খবর দেয়া হয়। ৫ হাজার টাকা দিয়ে বিষয়টি মিটিয়ে নেয়া হয়েছে। চুড়ামনকাটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান মুন্না জানান, বিষয়টি তিনি খোঁজ নিয়ে দেখছেন। ৫ নম্বর চুড়ামনকাটি ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আনিসুর রহমান জানান, গোসলের দৃশ্য ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে হিটু একাধিকবার ধর্ষণ করেছে বলে এক যুবতী এসে নালিশ করেছেন। তাকে মামলা করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। টাকা নিয়ে কে শালিস করেছে এটা তার জানা নেই। চুড়ামনকাটি ইউনিয়নের সাজিয়ালী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মুন্সি আনিসুর রহমান জানান, বুধবার বিকেলে ঘটনাটি তিনি শুনেছেন। তবে কেউ অভিযোগ করেননি। ঘটনার বিস্তারিত জানার চেষ্টা করছেন।