‘আমি হিটুর বউ হয়ে বাঁচতে চাই’

বিল্লাল হোসেন:
যশোর সদর উপজেলার চুড়ামনকাটিতে গোসলের দৃশ্য ইন্টারনেটে ভাইরালের হুমকি দিয়ে ধর্ষণের শিকার সেই যুবতী বিয়ের দাবিতে অভিযুক্ত হিটুর বাড়িতে শুক্রবার দ্বিতীয়বারের মতো অবস্থান নিয়েছেন। তার সাথে বিয়ে না দেয়া পর্যন্ত সেখান থেকে তিনি কোথাও যাবেন না বলে জানিয়েছেন। অভিযুক্ত হিটু যদি তাকে বিয়ে না করে তাহলে তিনি আত্মহত্যার পথ বেছে নেবেন বলেও ঘোষণা দিয়েছেন। এই ঘটনার পর হিটুর পরিবার স্থানীয়দের চাপের মুখে রয়েছেন। বিষয়টি শুনে গ্রাম্য মাতব্বর ইসহাক আলী গাজী হিটুর বাড়িতে যান। তিনি অভিযুক্তের পিতামাতাকে ওই যুবতীর দাবি মেনে নেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। অন্যথায় তারা জনরোষের শিকার হতে পারেন।
ওই যুবতী জানিয়েছেন, হিটু ব্লাকমেইলিং করে তিন বছর ধরে আমার সতিত্ব হরণ করেছে। ধর্ষণের পর আমি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে বিয়ের আশ্বাসে বাচ্চা নষ্ট করিয়েছে। এখন অন্যত্র বিয়ে করার পায়তারা করছে। তিনি আরো বলেন, এতো দিন তার অত্যাচার আমি নিরবে সহ্য করে গেছি। এখন আমার পিছনে ফেরার উপায় নেই। ‘আমি হিটুর বউ হয়ে বাঁচতে চাই’। অন্যথায় আত্মহত্যা করা ছাড়া কোনো উপায় নেই। এদিকে ওই যুবতী শুক্রবার দ্বিতীয়বারের মতো অভিযুক্তের বাড়িতে অবস্থান নেয়ার পর স্থানীয়দের চাপের মুখে পড়ে হিটুর পরিবার। চুড়ামনকাটি গ্রামের মাতব্বর ইসহাক আলী গাজী জানান, বিষয়টি শুনে আমিসহ কয়েকজন ওই বাড়িতে গিয়ে যুবতীর অবস্থান করা দেখতে পায়। এসময় আমি ব্লাকমেইলিংয়ের শিকার যুবতীকে ছেলের বউ করে ঘরে তুলে নিতে হিটুর পিতা-মাতাকে বলেছি। অন্যথায় মহল্লাবাসী ওই যুবতীর পাশে থেকে আইনের আশ্রয়ে যাবেন। এ বিষয়ে অভিযুক্ত হিটুর পিতা চুড়ামনকাটি গ্রামের বাসিন্দা আবু বক্কার সিদ্দিক জানান, যে যা পারে করুক। আমি ওই মেয়ের সাথে ছেলেকে বিয়ে না দিলে কারো কিছু করার আছে। আমি ওই মেয়ের সাথে কথা বলেছি। কি করবো আর করবোনা সেটা মেয়ের সাথে বুঝে নেবো। চুড়ামনকাটি ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য আনিসুর রহমান জানান, ওই যুবতী বিয়ের দাবিতে দ্বিতীয়বারের মতো ওই বাড়িতে অবস্থান নিলে শুক্রবার অভিযুক্ত হিটুর পিতা আমার কাছে এসেছিলেন। আমি তাকে বলেছি ওই যুবতীর সাথে ছেলেকে বিয়ে দেয়ার জন্য। সাজিয়ালী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মুন্সি আনিসুর রহমান জানান, বিয়ের দাবিতে যুবতী অভিযুক্তের বাড়িতে অবস্থানের খবর তিনি শুনেছেন। বিষয়টির সমাধানে তিনি গ্রামের মাতব্বরদের সাথে কথা বলেছেন। যুবতীর সাথে কথা বলেছি। বিয়ের দাবি ব্যর্থ হলে তিনি হিটুর বিরুদ্ধে মামলা করার কথা বলেছিলেন। পুলিশের পক্ষ থেকে তাকে সব রকমের আইনি সহায়তা দেয়া হবে। শুক্রবার নাকি ওই যুবতী আবার আত্মহত্যার হুমকি দিয়েছে। যুবতীর কোনো ক্ষতি হলে হিটুর পরিবার দায়ি থাকবে।