জীবননগর থানার ওসিসহ তিনজন লাইনে ক্লোজ

জীবননগর (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধি:
চুয়াডাঙ্গার জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ গনি মিয়া, সাব-ইন্সপেক্টর সাইদুজ্জামান ও কনস্টেবল মেহেদীকে দায়িত্বে অবহেলা ও মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে সম্পৃক্ততার অভিযোগে চুয়াডাঙ্গা পুলিশ লাইনে প্রত্যাহার করা হয়েছে। রোববার রাতে ও সোমবার বিকেলে দু’দফায় প্রত্যাহার করা হয়েছে।
রোববার রাতে জীবননগর শাহাপুর পুলিশ ক্যাম্পের আনসার সদস্য তিনজন মাদক ব্যবসায়ীকে দু’লিটার চোলাই মদসহ গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতদের মধ্য থেকে একজনকে ছেড়ে না দেয়া নিয়ে আনসার সদস্যের সাথে ওসি শেখ গনি মিয়া ও সাব-ইন্সপেক্টর সাইদের সাথে মত বিরোধ বাধে। আনসার সদস্য পুলিশ সুপারকে অভিযোগ করেন। পরবর্তীতে প্রত্যাহারের ঘটনা ঘটে।
জীবননগর উপজেলার শাহাপুর পুলিশ ক্যাম্পের সাব-ইন্সপেক্টর সাইদুজ্জামান সাইদ বলেন, আনসার সদস্য ফারুক টিপু নামের মাদক ব্যবসায়ীকে ছেড়ে দেয়ার প্রস্তাব দেয়। তার এ প্রস্তাবে ওসি স্যার রাজি না হওয়ায় ফারুক এসপি স্যারের কাছে আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছে।’
ওসি শেখ গনি মিয়া বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসার সাথে সম্পৃক্ততার প্রমাণ পায়, তাহলে আমাকে যে শাস্তি দেবে তা আমি মাথা পেতে নেব।’
চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম বলেন, প্রত্যাহার করে নেয়া অফিসার-ফোর্সের বিরুদ্ধে অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত চলছে এবং আনসার সদস্যের ব্যাপারেও সংশ্লিষ্ট বিভাগে প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে।