মানববন্ধনে আইনজীবী আমিরের ফাঁসি দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক:
যশোরের সদরের ডহেরপাড়ার গৃহবধূ সালেহা খাতুন ওরফে সোনিয়া হত্যা মামলায় আটক স্বামী অ্যাডভোকেট আমির হোসেনকে দুইদিন জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দেয় আদলত। রোববার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক গৌতম মল্লিক রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে এ আদেশ দিয়েছেন।
অপরদিকে সোনিয়া হত্যার দ্রুত বিচার ও ফাঁসির দাবিতে দাবিতে প্রেসক্লাব যশোরের সামনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। আমরাই পারি পারিবারিক নির্যাতন প্রতিরোধ জোট, বাঁচতে শেখা ও এলাকাবাসীর উদ্যোগে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধনে নিহত সোনিয়ার মা নুরজাহান বেগম, ভাই-বোনসহ লেবুতলা গ্রামের শতাধিক নারী-পুরুষ অংশ নেন।
মামলার অভিযোগে জানা গেছে, ছয়মাস আগে অ্যডভোকেট আমির হোসেনের সাথে সোনিয়ার বিয়ে হয়। সোনিয়া দুই মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিল। গত শনিবার স্ত্রী সালেহা খাতুন ওরফে সোনিয়াকে পিটিয়ে হত্যা করে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা বলে প্রচার করে আমির। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। এব্যাপারে নিহত সোনিয়ার পিতা যশোর সদরের লেবুতলা পূর্বপাড়ার সিরাজুল ইসলাম বাদী হয়ে আমির হোসেনকে আসামি করে কোতয়ালি থানায় হত্যা মামলা করেন। পুলিশ হত্যার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে তাকে আটক করে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে সোপর্দ করেন। রোববার আসামির রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে দুইদিন জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দিয়েছেন।
মানববন্ধন চলাকালে বক্তারা বলেন, সোনিয়ার হত্যাকারী তার স্বামী আমির হোসেন আইনজীবী হওয়ায় প্রভাব খাটিয়ে হত্যাকান্ডকে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেবার চেষ্টা করছে। পুলিশ আমির হোসেনকে আটক করেছে। বক্তারা মামলার সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে আসামির শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছেন।