১৬ বছর পর পাইকগাছা আ.লীগের সম্মেলন ঘিরে প্রাণচাঞ্চল্য

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি :
১৬ বছর পর ২৩ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে পাইকগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন। গত ২০০৩ সালের ১০ ডিসেম্বর উপজেলা আওয়ামী লীগের সর্বশেষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনকে ঘিরে দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে প্রাণচাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। অবশ্য এক পক্ষের অভিযোগ রয়েছে অনুপ্রবেশকারীদের নিয়ে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়েছে।
সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য চাঁদখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আহবায়ক ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মুনছুর আলী গাজী ২০১২ সালে বিএনপি থেকে আওয়ামী লীগে যোগদান করেন। অপর সদস্য লস্কর ইউপি চেয়ারম্যান কেএম আরিফুজ্জামান তুহিন বিগত ইউপি নির্বাচনের কিছুদিন আগে আওয়ামী লীগে যোগদান করে আওয়ামী লীগের টিকিট নিয়ে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হয়ে লস্কর ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির পাইকগাছা শাখার কৃষ্ণপদ মন্ডল আওয়ামী লীগে এসে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য হয়েছেন। এসব ব্যক্তিদের ব্যাপারে একপক্ষের অভিযোগ থাকলেও অধিকাংশ সদস্য চাচ্ছেন কাউন্সিলরদের সরাসারি ভোটে নেতা নির্বাচিত হোক।
আওয়ামী লীগের সদস্য ও রাড়–লী ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ আব্দুল মজিদ গোলদার বলেন, সম্মেলনে কাউন্সিলরদের ভোটের মাধ্যমে নেতা নির্বাচিত করলে কারো মনে কোনো ক্ষোভ থাকবে না।
সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ রশীদুজ্জামান বলেন, কেন্দ্র থেকে কাউন্সিলরদের ভোটের মাধ্যমে সম্মেলন করার নির্দেশনা রয়েছে। আর এটি গণতান্ত্রিক পন্থা। সম্মেলনে স্বচ্ছতার সাথে কমিটি গঠন হবে।
উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক ও উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী মোহাম্মদ আলী বলেন, সম্মেলন কিভাবে হবে তা কেন্দ্রই নির্ধারণ করবে। এ ব্যাপারে আমার কোনো মন্তব্য নেই। দীর্ঘদিনপর সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। সম্মেলনে যোগ্যরা নেতা নির্বাচিত হবেন।