চৌগাছা পৌর মেয়রের সহযোগিতায় আপন ঠিকানায় বাক প্রতিবন্ধি

বাবুল আক্তার চৌগাছা :
যশোরের চৌগাছা পৌর মেয়র নূর উদ্দিন আল মামুন হিমেলের সহযোগিতায় আপন ঠিকানা খুঁজে পেলেন ময়মনসিংহ জেলার বয়োবৃদ্ধ বাক প্রতিবন্ধী সত্যেন্দ্র চন্দ্র দে (৬২)।
বৃহস্পতিবার সকালে তাকে যশোর থেকে নিজ ঠিকানা ময়মনসিংহ জেলার নান্দাইলের উদ্দেশ্যে পাঠনো হয়োছে। সত্যেন্দ্র চন্দ্র দের বাড়ি ফিরে যাওয়ার খবরে পরিবারে সদস্যরা পৌর মেয়রকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ভিডিও কলের মাধ্যমে।
জানা গেছে, গত এক সপ্তাহ ধরে অপরিচিত এই বাক প্রতিবন্ধি চৌগাছা শহরে অসহায়ভাবে ঘুরাফেরা করতে থাকেন। বিভিন্ন মানুষের সহযোগিতায় খাবার খেয়ে রাতে রাস্তার ধারে দোকান ঘরের পাশে খোলা জায়গায় তিনি ঘুমাতেন।
বিষয়টি পৌর মেয়র নুর উদ্দিন আল মামুন হিমেলের নজরে এলে তিনি ওই বাক প্রতিবন্ধীকে গত দুই দিন আগে পৌরসভায় নিয়ে যান। পৌরসভার একটি কক্ষে তাকে থাকা ও খাওয়ার ব্যবস্থা করার পাশাপাশি বাক প্রতিবন্ধির ঠিকানা খুঁজতে থাকেন।
একপর্যায় বৃহস্পতিবার সকালে পৌর মেয়র তার নিজ গাড়িতে করে তাকে যশোর শহরে নিয়ে যান। যশোরে পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশনে (পিবিআই) এর সহযোগিতায় তার হাতের আঙ্গুলের ছাপ নিয়ে জাতীয় পরিচয়পত্র বের করেন। সেখানে দেখা যায়, বাক প্রতিবন্ধী ব্যক্তির নাম সত্যেন্দ্র চন্দ্র দে, পিতা মৃত ললিনী মহন দে, মাতা শেফালী রানী দে, গ্রাম-ধান মহাল, নান্দাইল পৌরসভা, ময়মনসিংহ।
এরপর ওই পরিচয় পত্রের সূত্র ধরে তার ছেলে এবং পরিবারের জাতীয় পরিচয় পত্রও সংগ্রহ করা হয়।
একপর্যায় বাক প্রতিবন্ধী সত্যেন্দ্র চন্দ্র দে’র পরিবারের সদস্যদের সাথে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিডিও কলে কথা হয়। তখন উভয়ই কান্নায় ভেঙে পড়েন। পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন প্রায় ১ মাস আগে থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন। নিখোঁজের কারণে পরিবারের পক্ষ থেকে নান্দাইল থানায় একটি জিডিও করেন।
বাসের ধর্মঘট থাকার কারনে তাকে পাঠানো সম্ভব ছিল না। এরপর বাক প্রতিবন্ধী সত্যেন্দ্র চন্দ্র কে যবিপ্রবিতে নিয়ে যান মেয়র নুর উদ্দীন আল মামুন। ময়মনসিংহ জেলা থেকে ভর্তিচ্ছুক শিক্ষার্থীরা একটি বাস রিজার্ভ করে যবিপ্রবি’তে ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসে। ওই রিজার্ভ বাসে তাকে তুলে দেন তিনি। ওই বাসের চালকের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় কিছু টাকা দিয়ে বাক প্রতিবন্ধীকে নিজ এলাকায় পাঠিয়ে দেন। একই সাথে ওই এলাকার স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সাথে বাসের নাম্বার ও বাস চালকের মোবাইল নাম্বার দিয়ে পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেন তিনি।
এ বিষয়ে পৌর মেয়র নুর উদ্দিন আল মামুন হিমেলের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাক প্রতিবন্ধী সত্যেন্দ্র চন্দ্র দে চৌগাছাতে খুবই অসহায়ভাবে ঘুরাফেরা করতে দেখে আমি তাকে পৌরসভায় থাকার ব্যবস্থা করি। বৃহস্পতিবার যশোর পিবিআই’তে নিয়ে তার ঠিকানা খুঁজে পাই এবং নিজ ঠিকানায় পাঠানোর ব্যবস্থা করি। তাঁকে বাড়িতে পাঠিয়ে নিজের কাছে খুব ভালোলাগছে।