যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে সনাক’র মতবিনিময়সভা

নিজস্ব প্রতিবেদক:
যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের সেবার মানোন্নয়নের লক্ষ্যে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সাথে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)’র পৃষ্ঠপোষকতায় পরিচালিত সচেতন নাগরিক কমিটির (সনাক) মতবিনিময়সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ৯টায় হাসপাতালের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত এ মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন তত্ত্বাবধায়ক ডা: আবুল কালাম আজাদ। বক্তব্য দেন সনাক সভাপতি অধ্যাপক সুকুমার দাস, হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. আব্দুর রহিম মোড়ল, আরএমও ডা. আরিফ আহমেদ, মেট্রন নার্স মোসা: ফেরদৌসি বেগম, মেডিকেল কলেজের মো: গোলাম মোস্তফা, জরুরি বিভাগের কর্মকর্তা রতন কুমার সরকার, স্টুয়ার্ড শাহজাহান, জমাদ্দার ইমরান হাসান প্রমুখ। সঞ্চালনা করেন টিআইবি’র এরিয়া ম্যানেজার এএইচএম আনিসুজ্জামান। এসময় উপস্থিত ছিলেন হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. হিমাদ্রি শেখর সরকার, কার্ডিওলজি কনসালটেন্ট ডা. তৌহিদুল ইসলাম, ডা. আব্দুস সামাদ, ডা. নিলুফার ইসলাম প্রমুখ।
সভায় সনাক’র ইয়েস গ্রুপ কর্তৃক হাসপাতালে পরিচালিত স্যাটেলাইট এআই-ডেস্ক এর পর্যবেক্ষণ ও সুপারিশসমূহ উপস্থাপন করেন টিআইবি’র এরিয়া ম্যানেজার এএইচএম আনিসুজ্জামান। পর্যবেক্ষণগুলো মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো জরুরি বিভাগে ক্ষতস্থান সেলাই বা পরিস্কারের জন্য টাকা দাবি করা, সেবাগ্রহিতাদের সাথে খারাপ ব্যবহার, বাইরের ক্লিনিক থেকে পরীক্ষা-নীরিক্ষা করানোর জন্য রোগী বা রোগীর স্বজনদের উৎসাহিত করা, ওয়ার্ড গুলেতে তেলাপোকা ও ছারপোকার উপদ্রব, বাথরুমসহ বিভিন্ন ওয়ার্ডে বিদ্যুতের সুইচ নষ্ট, বহির্বিভাগে অসময়ে ওষুধ কোম্পানির প্রতিনিধিদের ভিড়, চিকিৎসক রোগীদের সমস্যা ঠিকমত না শুনেই প্রেসক্রিপশন দেন, হুইল চেয়ার-ট্রলি-স্ট্রেচার ব্যবহারের জন্য টাকা দাবি করা, নার্স ও ওয়ার্ডবয়দের খারাপ ব্যবহার। সভায় বিষয়গুলো তুলে ধরা হয়।
হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আবুল কালাম আজাদ বলেন, মতবিনিময় সভায় মূলত হাসাপাতালের যে অসুবিধাগুলো আছে সেগুলো নিয়ে আলোচনা হয়। এটি আমাদের জন্য খুবই ইতিবাচক একটি বিষয়।