বিদ্যুৎহীনদের মাইকিং করে খুঁজে বিদ্যুতের আওতায় আনতে হবে …… শেখ আফিল উদ্দিন এমপি

শেখ কাজিম উদ্দিন, বেনাপোল :
যশোর-১ (শার্শা) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ শেখ আফিল উদ্দিন বলেছেন, গ্রামে যারা বিদ্যুৎহীন আছে তাদের মাইকিং করে খুঁজে বের করে বিদ্যুতের আওতায় আনতে হবে।
তিনি বলেন, একমাত্র জাগ্রত স্বপ্ন বাস্তবায়নকারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে শহরের মানুষের পাশাপাশি একই ধরনের উন্নত সুবিধা গ্রামেও পৌছে দিচ্ছেন। গ্রামের মানুষরাও যাতে শহরের মানুষের সাথে তাল মিলিয়ে পাকা রাস্তাসহ সকল ধরনের নাগরিক সুবিধা ভোগ করতে পারে সেলক্ষ্যে তিনি ২০০৮ পরবর্তী সময়ে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এসেই কাজ শুরু করেছিলেন। যা আজ শেষের পথে। তাই, এ উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় আমি পিছিয়ে থাকতে চাই না। আমি আমার শার্শা বাসীকে উন্নত সেবা দিতে চাই। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় যশোরের শার্শা উপজেলা পরিষদের মাসিক সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে একথা বলেন তিনি।
শার্শা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পূলক কুমার মন্ডলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মাসিক সভায় শেখ আফিল উদ্দিন এমপি আরো বলেন কথায় নয়, আমি কাজে বিশ্বাসী। আমি চায় শার্শা উপজেলার প্রত্যেকটি রাস্তা পাকাকরণ করতে হবে। গ্রামের একটি রাস্তাও যাতে চিরচেনা সেই ধুলোবালি আর কাঁদা মাটির রাস্তা না থাকে সেজন্য তিনি উপজেলা প্রকৌশলীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন শহরের মানুষের পাশাপাশি গ্রামের মানুষও একই ধরনের সুবিধা ভোগ করবে। তাই, প্রধানমন্ত্রীর ভিশন-২০২১ বাস্তবায়নে আমরা পিছিয়ে থাকতে চায় না। ইতিমধ্যে শার্শা উপজেলার প্রায় শতভাগ মানুষ বিদ্যুতের আওতায় চলে এসেছে। গ্রামগঞ্জের সামান্য কয়েক ঘর যারা বিদ্যুৎ পাইনি তাদেরকে মাইকিং করে খুঁজে বের করে বিদ্যুতায়নের আওতায় আনতে হবে।
শার্শা উপজেলা পরিষদের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত মাসিক সভায় সাংসদ শেখ আফিল উদ্দিন আরো বলেন, উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় আমরা অল্পদিনের মধ্যেই ঢাক-ঢোল পিটিয়ে শার্শা উপজেলাকে শতভাগ বিদ্যুতায়নের উপজেলা হিসেবে ঘোষণা দেব। শীঘ্রই আমরা রাস্তা, ব্রিজ, কালভার্ট, মসজিদ, মাদ্রাসা, মন্দির, স্কুল, কলেজের নির্মাণ কাজ শেষ করে শার্শা উপজেলা ডিজিটাল উপজেলা হিসেবে কাজ করতে চায়। সেলক্ষ্যে শার্শা উপজেলা পরিষদের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের যেকোন উন্নয়নমুখী উপদেশ সাদরে গ্রহণ করব। প্রয়োজনে তাদের সাথে যেকোন ধরনের কায়িক পরিশ্রম করতেও রাজি আছি।
এসময় উপস্থিত ছিলেন শার্শা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু, সহকারি কমিশনার (ভূমি) খোরশেদ আলম, শার্শা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আতাউর রহমান, যশোর জেলা পরিষদের সদস্য ও নাভারণ ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান, উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা আবুল হাসান, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা লাল্টু মিয়া, কৃষি কর্মকর্তা সৌতম কুমার সীল, পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সাইদুর রহমান, সমবায় কর্মকর্তা রফিকুজ্জামান, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান চৌধূরী, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শেখ আব্দুর রব, দারিদ্র্য বিমোচন কর্মকর্তা শফিউর রহমান, উপজেলা সেটেলমেন্ট কর্মকর্তা ফুয়াদুল ইসলাম, প্রোগ্রাম কর্মকর্তা দেবসীস সাহা, তথ্যসেবা কর্মকর্তা সুমনা পারভীন, খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা ইন্দ্রজিৎ সাহাসহ উপজেলা প্রশাসনের সকল কর্মকর্তা।
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আলহাজ সালেহ আহমেদ মিন্টু, শার্শা সদর ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন, বেনাপোল ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ বজলুর রহমান, বাহাদুরপুর ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান, পুটখালী ইউপি চেয়ারম্যান হাদিউজ্জামান, গোগা ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ আব্দুর রশিদ, বাগআঁচড়া ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ ইলিয়াস কবির বকুল, কায়বা ইউপি চেয়ারম্যান হাসান ফিরোজ আহমেদ টিংকু, উলাশী ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ আয়নাল হক, নিজামপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আযাদ, ডিহি ইউপি চেয়ারম্যান হোসেন আলী, লক্ষণপুর ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ারা বেগম ও উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম সরদার প্রমুখ।