যশোর মেডিকেল কলেজে হবে ৫শ’ শয্যা হাসপাতাল

বিল্লাল হোসেন :
পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী স্বপন কুমার ভট্টাচার্য্য বলেছেন,যশোর মেডিকেল কলেজে দ্রুত ৫শ’ শয্যা হাসপাতাল করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে আশ্বাসও দিয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সাথে আলোচনার সময় যশোরের ৫ এমপি সেখানে উপস্থিত ছিলেন। শুক্রবার যশোর মেডিকেল কলেজে দশম ব্যাচের প্রথম বর্ষের এমবিবিএস কোর্সের শিক্ষার্থীদের পরিচিতিমূলক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্য নিজস্ব পরিবহন ব্যবস্থা ও ক্যাম্পাসে আবাসন সংকট নিরসনে জোরালো চেষ্টা করা হবে। প্রতিমন্ত্রী স্বপন কুমার ভট্টাচার্য্য আরো বলেন, মেডিকেলে মেধাবী শিক্ষার্থীরা লেখাপড়া করে। নিজেকে যোগ্য চিকিৎসক হিসেবে গড়ে তুলতে হলে প্রয়োজন কঠোর পরিশ্রম। এমবিবিএসে মেধার চেয়ে পরিশ্রমের মূল্য বেশি। তাই প্রথম ধাপে পরিশ্রম করো। তাহলে যোগ্য চিকিৎসক হিসেবে সমাজে দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে পারবে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাকে বুকে ধারণ করে এগিয়ে চলেছেন। চিকিৎসা ব্যবস্থার উন্নয়নে গ্রহণ করেছেন নানা পদক্ষেপ। সভাপতি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. গিয়াস উদ্দিনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে যশোর সদর -৩ আসনের এমপি কাজী নাবিল আহমেদ বলেছেন, মনে রাখতে হবে একজন চিকিৎসক স্বাস্থ্য খাতের লিডার। স্বাস্থ্যখাতের সুনাম অর্জন কেবল একজন মেধাবী চিকিৎসকের পক্ষেই সম্ভব। তাই এমবিবিএসের প্রথম ধাপে মেধার প্রয়োগ ও পড়াশুনাকে যতœ সহকারে নিতে হবে। ভালো ডাক্তার হতে হলে কষ্ট করার মানসিকতা রাখতে হবে। হতে হবে পরিশ্রমী। সাদা এপ্রোনটা পরেই স্বপ্ন দেখো সেরা চিকিৎসক হওয়ার। লক্ষ্য সফলে অল্প অল্প করে নিজেকে তৈরি করো। তিনি আরো বলেন একজন চিকিৎসককে যেমন মেধাবী, পরিশ্রমী হতে হয়। তেমনি একজন ধৈর্যশীল, বিবেকবান, ভালো মানুষ হতে হয়।চিকিৎসক হওয়ার পরে তোমাদের কাছে যারা চিকিৎসা নিতে আসবে তাদের আপন মনে করে চিকিৎসাসেবা প্রদান করতে হবে। কাজী নাবিল আহমেদ আরো বলেন, যশোর মেডিকেল কলেজের সার্বিক উন্নয়নে সব সময় ভূমিকা পালন করা হবে। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন, শিক্ষক সমিতির সভাপতি নাক কান গলা বিভাগের অধ্যাপক ডা. আক্তারুজ্জামান। কলেজ পরিচিতি নিয়ে বক্তব্য দেন সহযোগী ও অর্থো সার্জারি বিভাগের প্রধান ডা. গোলাম ফারুক, নবীন শিক্ষার্থীদের পরিচয় করিয়ে দেন গাইনী বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. রবিউল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন যশোরের সাবেক সিভিল সার্জন স্বাচিপ যশোর জেলা শাখার সভাপতি ডা. আতিকুর রহমান খান, সার্জারী সহযোগী অধ্যাপক অজয় কুমার সরকার, গাইনী বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. ইলা মন্ডল, ইন্টার্ণ চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি ডা. সজিব হাসান আগুন, মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ডা. পার্থ সরকার, নবীন শিক্ষার্থী অদিতি গোলদার ও সাব্বির হোসেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন অর্থো সার্জারী বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. এএইচএম আব্দুর রউফ। আলোচনা শেষে নবাগত শিক্ষার্থীদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো ও এপ্রোন পরিয়ে দেন আমন্ত্রিত অতিথিরা।